দীর্ঘ ১২ দিনের এশিয়া সফরে জাপানে পৌঁছেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রোববার সকালে ট্রাম্প ও যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প জাপানের রাজধানী টোকিওর পশ্চিমে ফুসা সিটির ইয়োকোতা বিমান ঘাঁটিতে পৌঁছান বলে জানিয়েছে বিবিসি, বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

গত ২৫ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে এশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের কোনো প্রেসিডেন্টের এটাই দীর্ঘতম সফর। সফরে ট্রাম্প জাপানের পাশাপাশি দক্ষিণ কোরিয়া, চীন, ভিয়েতনাম ও ফিলিপাইনে যাবেন।

উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনার মধ্যেই ট্রাম্পের এই সফর শুরু হল।

সফরে ট্রাম্প দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সঙ্গে জোটবদ্ধতা তুলে ধরার পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে চীনের ওপর চাপ সৃষ্টি করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, এশিয়া যাওয়ার পথে তাকে বহনকারী বিমান এয়ার ফোর্স ওয়ানে সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়াকে সন্ত্রাসে মদতদাতা দেশের তালিকায় যুক্ত করা হবে কি না সে বিষয়ে শিগগিরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এশিয়া সফরে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাতের আশা করছেন বলে এ সময় জানান তিনি। বলেন, “পুতিনের সঙ্গে আমাদের সাক্ষাৎ হবে বলে আশা করছি। আমরা উত্তর কোরিয়ার বিষয়ে পুতিনের সাহায্য চাই।”

ইয়োকোতা বিমান ঘাঁটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে ট্রাম্প বলেন, “কারোই, কোনো একনায়ক বা কোনো সরকারের আমেরিকার সঙ্কল্পকে অবজ্ঞা করা উচিত না।”

এখান থেকে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাওয়ার কথা রয়েছে ট্রাম্পের। একসঙ্গে গলফ খেলার পর একসঙ্গে দুপুরের খাবার খাওয়ারও কথা রয়েছে তাদের।

মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়া যাবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সেখানে দেশটির প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। পাশাপাশি দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় পরিষদে তার ভাষণ দেওয়ারও কথা রয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ায় থাকাকালে ট্রাম্প ডিমিলিটারাইজড্ জোন (ডিএমজি) নামে পরিচতি দক্ষিণ ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যবর্তী সীমান্ত এলাকা পরিদর্শনে যাবেন না; গত সপ্তাহেই তার সহকারীরা বিষয়টি নিশ্চিত করেছিলেন। সেখানে না গেলেও সিউলের দক্ষিণে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ঘাঁটি ক্যাম্প হামফ্রিতে যাবেন তিনি।

বুধবার চীন যাবেন ট্রাম্প। সেখানে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি অনেকগুলো বৈঠকে তার অংশ নেওয়ার কথা আছে।

শুক্রবার এশিয়া-প্যাসিফিক ইকোনোমিক কো-অপারেশন (অ্যাপেক) শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে ভিয়েতনামের ডানাংয়ে যাবেন ট্রাম্প। পরে শনিবার রাষ্ট্রীয় সফরে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে যাবেন। সেখানে ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট ও দেশটির অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি।

রোববার ফিলিপিন্সের রাজধানী ম্যানিলা যাবেন ট্রাম্প। সেখানে অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট নেশন্স (আসিয়ান) এর ৫০তম বর্ষপূর্তির আনুষ্ঠানিক নৈশভোজে অংশ নেবেন।

পরদিন সোমাবার ম্যানিলায় আসিয়ানের শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেবেন এবং ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তের সঙ্গে আলোচনায় মিলিত হবেন।

১৪ নভেম্বর মঙ্গলবার পূর্ব এশিয়া সম্মেলনে যোগ দিবেন তিনি। আঞ্চলিক এই সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও রাশিয়া ও ভারতও অংশ নিবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য