শনিবার দুপুরে বিরলের রুদ্রপুরে ভয়াবহ অগ্নিকা-ে নিঃস্ব পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও চাল বিতরণ করেছে বিরল উপজেলা প্রশাসন। এর আগে শুক্রবারে রাত্রে অগ্নিকান্ডে বাস্তুহারাদের রুদ্রপুর উচ্চবিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে শুকনা খাবার এবং দীপশিখা এনজিও’র পক্ষ হতে শনিবার ৩ বেলা খিচুরী ও ভাতের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

উল্লেখ্য, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বিরলের মঙ্গলপুর ইউপি’র রুদ্রপুর (মাঝাপাড়া) গ্রামে হঠাৎ অগ্নিকান্ডে ৪৪টি পরিবারের ঘর-বাড়ী ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়। পড়নের কাপড় আর ভিটে মাটি ছাড়া ৪৪টি পরিবার হাঁস-মুরগী, চাল-ডাল, বই-খাতা, মূল্যবান কাগজপত্র, কাপড়-আসবাবপত্র সব মুহুর্তের মধ্যে হারিয়ে ফেলে। ঘটনায় দিনাজপুর সদর ও বোচাগঞ্জ এর ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনে।

রাতেই নিঃস্ব পরিবারদের জন্য রুদ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে আশ্রয় কেন্দ্র স্থাপন করা হয়। উপজেলা চেয়ারম্যান আ ন ম বজলুর রশীদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ,বি,এম, রওশন কবীর, কর্মকর্তা ইনচার্জ আবদুল মজিদ, উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান, যুগ্ম-সম্পাদক সৈয়দ জিল্লুর রহমান, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এ্যাড. রবিউল ইসলাম, সদস্য আকবর আলী, ইউপি চেয়ারম্যান সেরাজুল ইসলামসহ রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ক্ষতিগ্রস্থদের সমবেদনা জানান।

ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মোঃ রফিকুজ্জামান জানান, প্রাথমিকভাবে অগ্নিকা-ে ক্ষয়ক্ষতি প্রায় ৩৫ লাখ টাকা। ইউপি চেয়ারম্যান সেরাজুল ইসলাম জানান, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে শুক্রবার রাতেই ২টি করে কম্বল এবং ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ হতে শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার দীপশিখা এনজিও’র পক্ষ হতে সকালে খিচুরী, দুপুরে ও রাতে ভাত বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, শনিবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে প্রতিটি পরিবারের মাঝে ৩০ কেজি চাল ও ১ বান্ডিল করে ঢেউটিন বিতরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য