মো: জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) থেকে: ‘শেখ রাসেল কিন্ডারগার্টেন স্কুল’ নামের সাইনবোর্ড লাগিয়ে অন্যের লিজ নেয়া রেলের ৫১ শতক জমি জবর দখল করেছেন নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌর ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান রাজা নামের এক ব্যাক্তি।

এ নিয়ে লিজ গ্রহিতা ফরহাদ তার জমির কাগজপত্রসহ সরেজমিনে গেলে রাজা তাকে মামলায় জড়ানোসহ গণধোলাই দেয়ার হুমকি দেয়। ফলে রাজার বিরুদ্ধে লিখিতভাবে নীলফামারী পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সৈয়দপুর সার্কেল), সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর অভিযোগ করেছেন ফরহাদ।

জানা যায়, সৈয়দপুর শহরের পৌর ৮ নং ওয়ার্ডের নিচু কলোনী এলাকায় প্রায় ৫১ শতক রেলের পতিত জমির পজেশন রেল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে লিজ নিয়ে তা চাষাবাদ করে আসছিলেন মো; হারেস মাতব্বরের ছেলে ফরহাদ হোসেন। কিন্তু এলাকার ভুমিদস্যু নামে পরিচিত রাজা তার বাহিনী নিয়ে রাতের অন্ধকারে ফরহাদের ভোগদখলের জমির আবাদি ফসল নষ্ট করে জমিটি রাতারাতি দখল করে নেয়। এ নিয়ে এলাকার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলে কৌশল করে দখলকৃত জমিতে শেখ রাসেল কিন্ডারগার্টেন স্কুল নামে একটি সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে রাজার সাথে মুঠোফোন ০১৭১৮৩৭১৯৭৭ নম্বরে কথা হলে তিনি বলেন, জমিটি রেলওয়ের পতিত। কারো নামে লিজ নেয়া আছে কি না তা আমার জানা নেই। পতিত জমিটি ভালো কাজে লাগানোর জন্যই আমরা দখলে নিয়েছি আজ হতে ১ বছর আগেই। সেখানে এখন সৈয়দপুর আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে শেখ রাসেলের নামে একটি স্কুল করা হচ্ছে।

এদিকে রেল শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, এটি আওয়ামীলীগের কাজ নয়, আওয়ামীলীগের উন্নয়নের জোয়ার যখন সাড়া দেশে বইছে ঠিক সে সময় কিছু অসাধু ব্যক্তি আওয়ামীলীগের বদনাম ও নাম ভাঙ্গিয়ে এ ধরনের ব্যবসা করে খাচ্ছে। কেননা বঙ্গবন্ধু পরিবারের কোন সদস্যের নামে কোন প্রতিষ্ঠান করতে হলে পূর্ব অনুমতি নিতে হয়। তা করা হয়নি। তাই এখানে আওয়ামীলীগের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য