বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের তালিকায় অন্যতম এক নাম মৌসুমী। নিজের অবস্থানকে ক্যারিয়ারের শুরু থেকে আজ অবধি উজ্জ্বল করে রেখেছেন তিনি। এখনও সমান তালে ছোট ও বড় পর্দায় অভিনয় করে যাচ্ছেন রূপালী পর্দার এই জনপ্রিয় মুখ। গতকাল ছিল তার জন্মদিন।

দীর্ঘ দুই যুগ ধরে সমান জনপ্রিয়তা নিয়ে অভিনয় করে যাওয়া এই অভিনেত্রীর জন্মদিন ছিল ভিন্ন রকম। নিজের জন্মদিন এবার পারিবারিকভাবেই কাটিয়েছেন তিনি।

মৌসুমী বলেন, বিরাট কোনো আয়োজন নেই এবার। আমি পরিবারের মানুষদের সঙ্গে দিনটি কাটালাম। দারুণ সময় কেটেছে আমার। ওমর সানী আমাকে বেশ সারপ্রাইজ দিতে পছন্দ করে। আমার কাবাব জাতীয় খাবার বেশ পছন্দের। এটা ওমর সানী জানে। তাই বিকালে কাবাবও ছিল খাবারের তালিকায়। আমার মা, স্বামী, দুই সন্তানকে নিয়েই সময় কেটেছে আমার।

সেই সঙ্গে সবার কাছে দোয়া চাই আমি। দেখতে দেখতে এ বছর শেষ হয়ে যাচ্ছে। চলচ্চিত্রের কাজের পরিবেশে এবার ছিল অনেক অস্থিরতা। তাই জানতে চাওয়া মৌসুমীর চোখে এ বছরটা কেমন কাটছে? মৌসুমী বলেন, চলচ্চিত্রশিল্পে বেশ কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ছিল এ বছর। এসব ঘটনা বাদ দিলে বছরটি বেশ ভালো কেটে যাচ্ছে আমার। আমি হট্টগোল একদম পছন্দ করি না।

এক কথায় বলতে গেলে আমি সবসময়ই চুপচাপ থাকতে পছন্দ করি। আমাদের চলচ্চিত্রশিল্পকে এগিয়ে নিতে হলে সকলের কাজে মনোযোগ দেওয়া উচিত। গ-গোল না করে কাজ দিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে আমাদের। চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবেও কাজ করছেন মৌসুমী। কয়েকদিন আগে চিত্রনায়ক রিয়াজ ও জাহিদ হাসানের সঙ্গে দুটি বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন।

বর্তমান কাজের ব্যস্ততা নিয়ে জানতে চাইলে মৌসুমী বলেন, বর্তমানে মুক্তির অপেক্ষায় আছে তিনটি চলচ্চিত্র। এগুলো হচ্ছে ‘পবিত্র ভালোবাসা’, ‘আমি নেতা হব’ ও ‘পোস্টমাস্টার ৭১’। এরমধ্যে ‘পবিত্র ভালোবাসা’ ও ‘পোস্টমাস্টার ৭১’ নামে দুটি চলচ্চিত্রে আমার বিপরীতে ফেরদৌস ও ‘আমি নেতা হব’ ছবিতে ওমর সানী অভিনয় করেছেন।

এ ছাড়া উত্তম আকাশের ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়্যা’ নামে নতুন একটি চলচ্চিত্রে কাজ করার কথা রয়েছে। বর্তমানে এর চিত্রনাট্যের কাজ চলছে। এদিকে মৌসুমী তার ফ্যান ক্লাব যারা নিয়মিত পরিচালনা করছেন তাদের জন্য এবারের জন্মদিন উৎসর্গ করেছেন।

মৌসুমী অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’। এতে তার সঙ্গে অভিনয় করেছেন ডিপজল, বিদ্যা সিনহা মিম, বাপ্পী’সহ আরও অনেকে। মৌসুমী নারগিস আক্তারের ‘মেঘলা আকাশ’, চাষী নজরুল ইসলামের ‘দেবদাস’ এবং মোস্তফা কামাল রাজের ‘তারকাঁটা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারেও ভূষিত হন। এখনো রূপালী পর্দায় আলো ছড়াচ্ছেন এই অভিনেত্রী। তাইতো সবার কাছে এখনো তিনি প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য