ছয় বছর আগে আল কায়েদার তৎকালীন শীর্ষ নেতা ওসামা বিন লাদেনকে হত্যার সময় জব্দ করা চার লাখ ৭০ হাজার নথি প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স এজেন্সি (সিআইএ)।

এসবের মধ্যে লাদেনের ডায়েরি ও তার ছেলে হামজার বিয়ের ভিডিও আছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

২০১১ সালে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে অভিযান চালিয়ে লাদেনকে হত্যা করে মার্কিন বাহিনী। সেসময় এই নথিগুলো জব্দ করা হয়। এর আগেও তিন দফায় সেসময়ের জব্দ করা বেশ কিছু নথি প্রকাশ করেছিল গোয়েন্দা সংস্থাটি।

সিআইএর কর্মকর্তারা জানান, বুধবার চতুর্থ দফায় সাড়ে চার লাখের বেশি নথি ছাড় করলেও জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি বিবেচনায় কিছু নথি প্রকাশ করা হয়নি।

“আল কায়েদার বিভিন্ন চিঠি, ভিডিও, অডিও ফাইল ও অন্যান্য জিনিস এ কারণেই প্রকাশ করা হয়েছে যেন মার্কিন জনগণ সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর কাজ ও পরিকল্পনা সম্পর্কে বিস্তৃত ধারণা পায়,” নথি প্রকাশের পর দেওয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই বলেন সিআইএ-র পরিচালক মাইক পম্পেও।

নথিগুলোতে আল-কায়েদার সঙ্গে ইসলামিক স্টেটের এখনকার ফাটল সম্পর্কে আঁচ পাওয়া যাবে বলে সিআইএ জানিয়েছে। মিত্রদের সঙ্গে জঙ্গি এ সংগঠনটির ‘কৌশল, মতবাদ ও ধর্মীয় বিরোধ’ বিষয়েও এতে ইঙ্গিত মিলবে বলে জানিয়েছে তারা।

২০০১ সালে টুইন টাওয়ারে হামলার জন্য দায়ী সংগঠনটি কিভাবে আরব বসন্তের গণজাগরণকে কাজে লাগানোর কৌশল নিয়েছিল বুধবার প্রকাশিত নথিগুলোতে সে সম্বন্ধেও ধারণা পাওয়া যাবে; গণমাধ্যমে নিজেদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বলের কি পরিকল্পনা ছিল আল কায়েদার জানা যাবে তাও।

লাদেনকে হত্যার সময় জব্দ করা কম্পিউটার থেকে হলিউডের চলচ্চিত্র, বাচ্চাদের কার্টুন এবং লাদেনকে নিয়ে বানানো তিনটি প্রামাণ্যচিত্র পাওয়া গেছে বলেও জানিয়েছে বিবিসি।

প্রকাশ করা নথির মধ্যে লাদেনের ছেলে হামজার বিয়ের ভিডিও আছে। কৈশোরেই বিয়ের পিড়িতে বসেছিলেন হামজা, যাকে আল কায়েদার পরবর্তী উত্তরসূরী হিসেবে গড়ে তুলছিলেন ওসামা।

বিশে পা দেওয়া হামজার সঠিক অবস্থান এখনো মার্কিন গোয়েন্দাদের অজানা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য