ফুলবাড়ী(দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে জেএসসি ও জেডেসি পরিক্ষায় ৩২১১ জন পরিক্ষার্থী অংশ গ্রহন করছে, এর মধ্যে আজ বুধবার প্রথম দিন বাংলা বিষয়ে জেএসসিতে ৩৮ জন ও জেডেসিতে ২০ জন পরিক্ষার্থী অনুপুস্থিত ছিল। এর মধ্যে ৩৫ জনেই বালিকা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন বাল্য বিয়ের কারনে বালিকারা শিক্ষা জিবন থেকে ছিটকে পড়ে, একারনে পরিক্ষায় অনুপুস্থি থাকে বালিকারা। আর বালকেরা জড়িয়ে পড়ে শিশুশ্রমে। প্রতিবছরের ন্যায়, জিএম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, সুজাপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয় ও দাদুল চকিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, তিনটি পরিক্ষা কেন্দ্রে জেএসসি ও দারুস্সুন্নাহ সিদ্দিকিয়া ফাজিল মাদরাসায় একটিতে জেডেসি পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

জিএম পাউলট উচ্চ বিদ্যালয় পরিক্ষাকেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ও জিএম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তোজাম্মেল হক বলেন, এই কেন্দ্রে ৮০৬ জন পরিক্ষার্থীর মধ্যে ৮জন অনুপুস্থিত এর মধ্যে ৭জন বালিকা।

সুজাপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয় পরিক্ষা কেন্দ্রের কেন্দ্রসচিব ও সুজাপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন বলেন, এই কেন্দ্রে ৮৬১ জন এর মধ্যে প্রথম দিনে বাংলা বিষয়ে ২৫ জন শিক্ষার্থী অনুপুস্থিত এর মধ্যে ১৬ জনেই বালিকা।

দাদুল চকিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রসচিব প্রধান শিক্ষক নবীউল ইসলাম বলেন এই কেন্দ্রে ৫৬৯ জন পরিক্ষার্থী, এর মধ্যে প্রথম দিনে মাত্র ৫ জন শিক্ষার্থী অনুপুস্থিত এর মধ্যে ৩ জনেই বালিকা। দারুস্সুন্নাহ সিদ্দিকিয়া ফাজিল মাদরাসার কেন্দ্র সচিব সাদেকুল ইসলাম বলেন এই কেন্দ্রে ৫২৮ জন পরিক্ষার্থী, প্রথম দিনে ২০ জন পরিক্ষার্থী অনুপুস্থিত, এর মধ্যে ১২ জনেই বালিকা।

এছাড়া কারিগরি শিক্ষা বোড এর অধিন ভোকেশনাল শাখায় ৪৫৪ জন পরিক্ষার্থী অংশ গ্রহন করলেও কারো অনুপুস্থিত থাকার খবর পাওয়া যায়নি।এছাড়া শান্তিপুর্নভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে জেএসসি ও জেডেসি পরিক্ষা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য