কাতালুনিয়ার বরখাস্ত নেতা কার্লেস পুজদেমনসহ স্বাধীনতাপন্থি নেতাদের বিরুদ্ধে আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনার প্রস্তুতি নিচ্ছেন স্পেনের প্রধান প্রসিকিউটর।

সোমবার নাগাদ আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দায়ের করা হতে পরে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

কাতালুনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা এবং স্পেন সরকারের পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে পুজদেমনকে বরখাস্ত ও স্বায়ত্বশাসন স্থগিত করে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর সোমবারই দেশটির প্রথম কর্মদিবস।

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাখয় মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডেকে আপাতত কাতালুনিয়ার দায়িত্ব উপ প্রধানমন্ত্রী সোরায়া সায়েনজ দে সান্তামারিয়ার হাতে হস্তান্তর করেছেন। সেখানকার পুলিশ প্রধানের দায়িত্ব নিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ ইগনাতিও জইদো।

যদিও পুজদেমন বলেছেন, স্পেন সরকারের বরখাস্তের আদেশ তিনি স্বীকার করেন না।

পুজদেমনকে বরখাস্ত করা হলেও তার রাজনৈতিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়নি।

তিনি চাইলে ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। কিন্তু সেটা অবশ্যই যদি তিনি দোষী সাব্যস্ত হয়ে কারাদণ্ড না পান বলে জানান স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলফনসো দাসতিস।

স্পেনের একতার দাবিতে কাতালান রাজধানী বার্সেলোনায় রোববার বিশাল মিছিল হয়।

সেখানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমরা কাতালুনিয়ার স্বায়ত্বশাসন কেড়ে নিচ্ছি না। বরং বাস্তবে আমরা শুধু সেটা পুন:প্রতিষ্ঠা করছি।”

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জইদো কাতালুনিয়ার সব পুলিশ কর্মকর্তাকে ওই অঞ্চলে শুরু হতে যাওয়া ‘নতুন যুগের’ প্রতি আনুগত্য প্রকাশের আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি আঞ্চলিক পুলিশ সদস্যদে নিজেদের কর্তব্যে কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, আদেশ পালন এবং ‘সবার অধিকার ও স্বাধীনতার নিশ্চয়তা দেওয়া আপনাদের দায়িত্ব’।

কাতালুনিয়ার সব পুলিশ স্টেশন থেকে বরখাস্ত পুজদেমনের ছবি সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ওই নির্দেশ পালন করা হয়েছে বলে বিবিসিকে জানান স্থানীয় কয়েকজন জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য