যুক্তরাষ্ট্র কখনোই পারমাণবিক শক্তিধর উত্তর কোরিয়াকে মেনে নেবে না বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস।

উত্তর কোরিয়ার দ্রুত অগ্রসরমান পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচী দেশটির নিরাপত্তাকে শক্তিশালী না করে বরং ক্ষতিগ্রস্ত করবে বলে শনিবার সতর্ক করেছেন তিনি, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

সঙ্কট সমাধানে কূটনীতিই যুক্তরাষ্ট্রের পছন্দের পথ, এই বার্তা নিয়ে সপ্তাহব্যাপী সফরে এখন এশিয়ায় আছেন ম্যাটিস। শনিবার দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে দেশটির সামরিক বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের সঙ্গে আলোচনার পরও একই কথা বলেছেন তিনি। শুক্রবার উত্তর কোরিয়ার উত্তেজনাপূর্ণ সীমান্ত পরিদর্শনে গিয়েও কথাটি বলেছিলেনি তিনি।

পিয়ংইয়ংকে সতর্ক করে তিনি বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনী এখনও যুক্তরাষ্ট্র-দক্ষিণ কোরিয়ার মিত্র বাহিনীর সঙ্গে তুলনা করার মতো অবস্থায় পৌঁছেনি, তাই কূটনীতিই সবচেয়ে বেশি ফলদায়ক হবে।

সিউলে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “কোনো ভুল করোনা। যুক্তরাষ্ট্র বা আমাদের মিত্রদের ওপর কোনো হামলা হলে পরাজিত করা হবে, আর কোনো ধরনের পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হলে ব্যাপক সামরিক পদক্ষেপের মাধ্যমে তার জবাব দেওয়া হবে যা একই সঙ্গে কার্যকরী ও অপ্রতিরোধ্য হবে।”

উত্তর কোরিয়ার ধারাবাহিক পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা এবং উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উত্তপ্ত বাদানুবাদের পর থেকে দেশটির সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তেজনা বেড়েই চলেছে।

উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক অস্ত্র দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানার সক্ষমতা অর্জন থেকে কয়েক মাস দূরে রয়েছে বলে সম্প্রতি জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইএ) । অপরদিকে দেশটিকে এ ধরনের সক্ষমতা অর্জন করতে দেওয়া হবে না বলে প্রতিশ্রুতি দিয়ে রেখেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। প্রয়োজন হলে উত্তর কোরিয়াকে ধ্বংস করে দেওয়া হবে বলে হুমকিও দিয়ে রেখেছেন তিনি।

এ পরিস্থিতিতে আগামী সপ্তাহে প্রথমবারের মতো এশিয়া সফরে আসছেন ট্রাম্প। সে সময় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে তার সিউল যাওয়ার কথা রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য