স্বামীর অপেক্ষায় দিন পার করছেন তিনি। বিয়ের পরেই লন্ডনে চলে যায় নাদিয়ার স্বামী। আর ফিরে আসে না সে। স্বামীকে প্রতারক ভেবে মনোকষ্টে দিন কাটতে থাকে নাদিয়ার। নাদিয়ার এমন দুঃসময়ে একদিন হঠাৎ বাড়িতে এসে হাজির হয় সজল।

নাদিয়ার স্বামীর বন্ধু সজল। সে লন্ডনে তার সঙ্গে থাকতো। সে নাদিয়াকে বলে, তার স্বামী লন্ডনে আরেকটি বিয়ে করেছে। এদিকে নাদিয়ার মন ভালো করার জন্য সজল ভালোবেসে কাছে টানার চেষ্টাও করে। একসময় নাদিয়াও রাজি হয়ে যায়। তাদের বিয়ে ঠিক হয়।

একদিন সজল সত্য কথাটা খুলে বলেন নাদিয়াকে। কী সেই সত্য কথা। এটি দেখা যাবে সজল ও নাদিয়া অভিনীত ‘অপেক্ষার শেষ প্রহর’ শিরোনামের নাটকটিতে। সাইয়েদ ইকবাল রচিত নাটকটি পরিচালনা করেছেন নাজমুল রনি। সমপ্রতি উত্তরায় নাটকটির শুটিং শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্মাতা। নাটকটিতে আরো অভিনয় করেছেন রুনা খান ও পীরজাদা।

শিগগিরই কোনো একটি টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে নাটকটি। নাটকটি প্রসঙ্গে নাদিয়া বলেন, রহস্যজনক একটি গল্পে নাটকটি নির্মিত হয়েছে। দর্শকদের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দেখার আগ্রহ থাকবে। আমার এবং সজলের রসায়নও দর্শক বেশ উপভোগ করবে বলে আশা করছি।

খন্ড নাটকের বাইরে নাদিয়া অভিনীত কয়েকটি ধারাবাহিক বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে। উল্ল্যেখযোগ্য ধারাবাহিকগুলো হলো সাজ্জাদ সুমনের ‘ছলে বলে কৌশলে’ অরণ্য ইমনের ‘ফ্যামিলি ফ্যান্টাসি’ কচি খন্দকারের ‘সিনেমা হল’ ও জাহিদ হাসানের ‘সেন্টিমেন্টাল সেলিম’। নাটক ও টেলিছবির বাইরে শর্ট ফিল্মেও নাদিয়ার দারুণ চাহিদা রয়েছে। আগামি মাসে জনপ্রিয় অভিনেতা শহীদুজ্জামান সেলিমের সঙ্গে একটি শর্ট ফিল্মে কাজ করবেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য