ভালোবেসে বিয়ে করেন অভিনেত্রী প্রসূন আজাদ। বর অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী মোহাইমিন সান। বিষয়টা গোপনই রেখেছিলেন তারা। বিয়ের এক বছরের মাথায় মানসিক টানাপড়েন শুরম্ন হয় তাদের। তাই এরইমধ্যে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত্মে পৌঁছেছেন তারা! আগামি ফেব্রম্নয়ারিতে সানের সঙ্গে প্রসূনের বিয়ে বিচ্ছেদের আবেদন কার্যকর হবে বলে জানালেন এই অভিনয়শিল্পী।

প্রসূনের ভাষ্য, ‘ওদের (মোহাইমিন) বাড়ি ময়মনসিংহে। সে আমার কাজিন। পরিবারকে না জানিয়েই আমরা ভালোবেসে বিয়ে করেছিলাম। তবে ডিভোর্সটা আমার পক্ষ থেকে দেয়া হয়নি। সানই আমাকে ডিভোর্স দিয়েছে। আমি এখন অপেক্ষায় আছি। কারণ সিদ্ধান্ত্ম বদলানোর সময় এখনো আছে। যদি তার সিদ্ধান্ত্ম পাল্টায় আমি হয়তো অনেক সুখী হব। আর যদি তা না হয়, সে ডিভোর্স দিয়ে ভালো থাকে সেখানে আমার কী বলার থাকে?’

বিয়ে করেছিলেন কবে- এমন প্রশ্নের জবাবে প্রসূণ জানান, ‘২০১৬ সালের ১৯ ফেব্রম্নয়ারি। সিডনিতে বিয়ে হয় আমাদের। বিষয়টি কাছের দু-একজন ছাড়া তেমন কেউ জানত না। তখন বেশ কিছুদিন অস্ট্রেলিয়ায়ও ছিলাম।’

বিচ্ছেদের তারিখ প্রসঙ্গে এই লাক্সতারকা জানান, ‘ডিভোর্স কবে ফাইল করা হয়েছে, সে বিষয়ে আমি জানি না। সরকারজি’ই (মোহাইমিনের পারিবারিক পদবি) আমাকে জানিয়েছে। বলল, ফেব্রম্নয়ারিতে এটা কার্যকর হবে।’

প্রসূন আরও জানান, ‘আমি আমার পরিবার নিয়ে চিন্ত্মিত। জানি না, সংবাদগুলো কিভাবে বাবা-মা নিবেন। ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলো অনেক স্পর্শকাতর। তাই দর্শক, সংবাদকর্মী ও পরিচিত সবারই উচিত বিষয়টি বোঝা। অন্যের সম্মান রক্ষা করা। সবাই পাশে থাকলে সব কিছু আমি সামলে উঠতে পারব।’

উলেস্নখ্য, বিটিভির ‘নতুন কুঁড়ি’র মাধ্যমে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে আসা এই মেয়েটি ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার ২০১২’ প্রতিযোগিতার প্রথম রানারআপ। এরপর তাকে দেখা গেছে বেশ কিছু নাটক ও টেলিছবিতে। মুক্তিপ্রাপ্ত ‘অচেনা হৃদয়’, ‘সর্বনাশা ইয়াবা’ ছাড়াও ও মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘মৃত্যুপুরী’ ছবিতেও অভিনয় করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য