দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় ৩০টাকা দরে চাল কিনছেন নারীরা। সরকারের বেঁধে দেওয়া দামে খোলা বাজারে ওএমএস এর চাল বিক্রয় পয়েন্ট গুলোতে এ চিত্র দেখা গেছে। সম্প্রতি বন্যা ও হঠাৎ করে চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় এ অবস্থা সৃষ্টি। প্রতিটি পয়েন্টে ও ওএমএস চাল ক্রয় করতে বেশীর ভাগেই নারীদের উপচেপড়া ভীর লক্ষ্য করা গেছে।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অফিস সূত্রে জানা জায় গত ২ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া ওএমএস চাল বিক্রি অব্যাহত রয়েছে। জন প্রতি সর্বোচ্চ ৫ কেজি করে চাল ক্রয় করতে পারবেন। সরকারী ছুটির দিন ব্যতিত প্রতি দিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ৩০টাকা দরে এই চাল পাওয়া যাবে। কাহারোল উপজেলায় ওএমএস এর ডিলারগণ এই চাল বিক্রি করছেন।

গতকাল বুধবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চাল কিনতে নারীদের দীর্ঘ লাইন। কথা হয় শ্যামলী ও পারুল রানীর সাথে। তারা বলেন পুরুষরা সকালে কাজে যায়, সেই জন্য আমাকে চাল কিনবার আসিবার লাগে।

এদিকে ওএমএস ডিলার বলেন চাহিদার তুলনায় বরাদ্দ অনেক কম এ বিষয়ে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান আমরা এখন পর্যন্ত ৮৭ মেঃ টন চাল খোলা বাজারে ওএমএস ডিলারদের মাধ্যমে বিক্রি করছি। আগামীতে এর পরিমান বরানো যায় কি না সংশ্লিষ্ট দপ্তরে জানানো হবে। নারী ক্রেতাদের ভীর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পুরুষেরা বিভিন্ন কাজে বাড়ীতে থাকায় নারীরাই এই চাল সংগ্রহ করছে বেশী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য