দারুণ একটা ঘুম দিয়ে রাত পার করতে চান। তাহলে নানি-দাদির আমলের ঘরোয়া পদ্ধতি অনুসরণ করুন। অস্থির শহুরেজীবনে অনেকেরই ভালো ঘুম হয় না। অষুধ খেয়ে ঘুমানো শরীরের জন্যও ভালো না। তবে প্রাকৃতিক উপায়ে অনুসরণ করে আরামের ঘুম দেওয়া যায়।

প্রচলিত এসব পদ্ধতি নিয়ে স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয় দুধ, লেটুসপাতা কিংবা দারুচিনি ভালো ঘুমের সহায়ক।

অনিদ্রা প্রতিকারে দুধঃ ঘুমানোর আগে এক কাপ গরম দুধ ভালো ঘুম হতে সাহায্য করে; এটা সবারই জানা। তবে এমন কিছু ভেষজ উপাদান ও মসলা আছে যা দুধের কার্যকারিতাকে বাড়াতে সাহায্য করে।

দারুচিনি: ১/৪ চা চামচ দারুচিনির গুঁড়া এক কাপ দুধের সঙ্গে মেশান এবং ঘুমাতে যাওয়ার আধ ঘণ্টা আগে পান করুন। রাতে ভালো ঘুম হবে।

জায়ফলঃ এক কাপ গরম দুধে এক চা-চামচ জায়ফলের গুঁড়া মেশান এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে পান করুন। চাইলে তাজা জায়ফল এক কাপ গরম পানি বা দুধের সঙ্গে মিশিয়ে খেতে পারেন।
জাফরান: এক কাপ গরম দুধে জাফরানের কয়েকটি আঁশ নিয়ে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পান করুন।

মসলা চাঃ অনিদ্রা দূর করতে মসলা চা খুব ভালো কাজ করে। এ ছাড়া তৈরি করতে পারেন লেটুস পাতার চা।

লেটুস চাঃ লেটুস পাতায় আছে শক্তিশালী উপাদান যা উদ্বেগ ও অনিদ্রা দূর করতে সাহায্য করে।
পদ্ধতি- গরম পানিতে কয়েকটি লেটুসের পাতা দিয়ে ফুটিয়ে এতে চা পাতা ও মধু মেশান। ঘুমাতে যাওয়ার আগে এই চা পান করুন, ঘুম ভালো হবে।

কলাঃ কলাতে ট্রিপ্টোফান নামক উপাদান থাকে যা সেরোটোনিনের মাত্রা বৃদ্ধির মাধ্যমে সহজে ঘুমাতে সাহায্য করে। এই ফলের ক্যালসিয়াম, লৌহ, পটাসিয়াম এবং অন্যান্য খনিজ উপাদানও ভালো ঘুমের সহায়ক।

গরম পানিতে গোসলঃ ঘুমাতে যাওয়ার আগে গরম পানিতে গোসল করা ঘুম ভালো হতে সাহায্য করে। গরম পানিতে গোসল করা হলে তা শরীর ও স্নায়ুকে আরাম দেয়। কার্যকারিতা বাড়াতে গরম পানিতে কয়েক ফোঁটা পছন্দসই এসেন্সিয়াল তেল মেশাতে পারেন।

অ্যাপল সাইডার ভিনিগার ও মধুঃ এই ভিনিগারে অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে যা ভালো ঘুম হতে সাহায্য করে। মধুতে আছে বিশ্রামদায়ক উপাদান এবং এটা মস্তিষ্ক থেকে সেরোটোনিন নামক উপাদান নিঃসরণে সাহায্য করে, ফলে ঘুম ভালো হয়।

ঘুমাতে যাওয়ার আগে, এক কাপ গরম পানিতে দুই টেবিল-চামচ মধু ও অ্যাপল সাইডার ভিনিগার মিশিয়ে পান করুন।
ছবি: রয়টার্স ও নিজস্ব।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য