মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, আগামী জানুয়ারী মাস হতে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়ি বাড়ি পৌছে দেবে সরকার। আর কোন মুক্তিযোদ্ধাকে ব্যাংকে লাইনে দাড়িয়ে ভাতা উত্তোলন করতে হবে না। এজন্য সকল প্রকার প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। শনিবার দুপুর দেড় টার দিকে নীলফামারীর ডোমার উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন হয়েছে। আওয়ামী লীগ সব সময় বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বোভৌমত্তে বিশ্বাস করে। আর বিএনপি ও তার নেত্রী স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না। তারা পাকিস্থানের পোষা তোতা পাখি। পাকিস্থান যেভাবে বিবৃত্তি দেয় খালেদা জিয়াও সেভাবে কথা বলে।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রধান বিচারপতি পিচ কমিটির সদস্য ছিলেন। তাই তিনি বঙ্গবন্ধুকে একক নেতা মানতে রাজি নন। মন্ত্রী বলেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার কাছে জবাব চাইতে হবে আর কোন নেতা ছিল? তিনি প্রধান বিচারপতির দূর্নিতিসহ বিভিন্ন সমালোচনা করে দেশে এনে তার বিচার দাবী করেন।

ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা: উম্মে ফাতেমার সভাপতিত্বে নীলফামারী-১ আসনের সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহবায়ক ফজলুর রহমার, ডোমার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক খায়রুল আলম বাবুল, সম্পাদক তোফায়েল অঅহমেত, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রী কমিটির সাধঅরন সম্পাদক সরকার ফারহানা আক্তার সুমি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার নুরননবী, সাবেক কমান্ডার আব্দুল জব্বার, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

প্রসঙ্গত, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে এলজিইডি’র বাস্তবায়নে দুই কোটি ২২ লক্ষ ৯৯ হাজার ছয় শত টাকা ব্যয়ে ডোমার উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য