ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ এখনো অনেক গ্রামে পৌছায়নি বিদুৎ সংযোগ, বিদুতের আশায় পদস্থ কর্মকর্তাদের দ্বারে দ্বারে ঘরতে ঘুরতে, যখন অনেক গ্রামের বাসীন্দারের পায়ের তালা ক্ষয হচ্ছে, সেই সময় একই গ্রামে বিদুৎ সংযোগ দিতে প্রতিযোগীতায নেমেছে, দুটি বিদুৎ সরবরাহ প্রতিষ্ঠান, পিডিবি ও দিনাজপুর পল্লীবিদুৎ সমিতি-২। ঘটনাটি ঘটেছে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার আলাদিপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর গ্রামে।

সরেজমিনে দেখাযায় ফুলবাড়ী পৌর শহর থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দুরত্বে ,আলাদিপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর গ্রামে বিদুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য বিদুতের খুটি স্থাপন করেছেন বাংলাদেম বিদুৎ উন্নায়ন র্বোড (পিডিবি), এরই মধ্যে ওই গ্রামে বিদুতের তার-খুটি স্থাপন করেছে দিনাজপুর পল্লীবিদুৎ-২। এখন বিদুৎ সংযোগ দেয়া নিয়ে মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে, পিডিবি ও পল্লীবিদুৎ। এই অবস্থায় পল্লীবিদুৎ ও পিডিপির প্রতিযোগীতায আটকে গেছে বিদুৎ সংযোগ, ফলে বিপাকে পড়েছে ওই গ্রামের সাধারন বাসীন্দারা।

এদিকে গ্রামবাসীরা পল্লীবিদুৎ এর সংযোগ নেয়া থেকে, পিডিবির সংযোগ নেয়ার আগ্রহ বেশি, গ্রামবাসীদের দাবী পল্রী বিদুৎ এর থেকে পিডিবির গ্রহক সেবা বেশি পাওয়া যায।
দনাজপুর পল্লীবিদুৎ-২ এর মহাব্যবস্থাপক সনতোষ কুমার বলেন, আলাদিপুর ইউনিয়নটি দিনাজপুর পল্লীবিদুৎ সমিতি-২ এর এলাকা। ওই এলাকার সংসদ সদস্য ও সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার, গত ২০১৬ সালে আলাদিপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর গ্রামে বিদুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য চাহিদাপত্র দিয়েছেন, একারনে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ওই গ্রামে বিদুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য তার-খুটি স্থাপন করা হয়েছে।

এদিকে পিডিবি ফুলবাড়ীর আবাসীক প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রীর চাহিদাপত্র মোতাবেক আলাদিপুর ইউনিয়নের ইসমাইলপুর গ্রামে বিদুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য বিদুতের খুটি স্থাপন করা হয়েছে।

অপরদিকে উপজেলার ভিভিন্ন এলাকায ঘরে দেখাযায়, উপজেলার কাজিহাল ইউনিয়নের আমড়া, রসুলপুর, শেকপাড়া ও মীরপুর গ্রামসহ ১০টি গ্রাম, আলাদিপুর ইউনিয়নের ৮ গ্রাম, এলুয়াড়ী, বেতদিঘি, দৌলতপুর, খয়েরবাড়ী ও শিবনগর ইউনিযনের আরো ২০ গ্রামে এখনো বিদুৎ সংযোগ পৌছাযনি, ওই এলাকার বাসীন্দারা বিদুৎ সংযোগ পাওয়ার জন্য কর্তা ব্যাক্তিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন, অথচ একই গ্রামে বিদুৎ সংযোগ দেয়ার জন্য প্রতিযোগীতায নেমেছে দুটি বিদুৎ সরবরাহ প্রতিষ্টান। এর পিছনের কারন কি তা খতিয়ে দেখার জন্য উদ্ধৃতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনো করছেন সচেতন মহল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য