হাকিমপুর (দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুরের হাকিমপুরে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার হাবিবপুর সিদ্দিকীয়া ফাযিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও মশিদপুর (নয়াপাড়া) গ্রামের বাসিন্দা মো. হারুনুর রশিদের বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে।

তবে হাকিমপুর থানা পুলিশের দাবি এটি চুরি। এছাড়াও রোববার ও সোমবার রাতে দুটি বাড়িতে ডাকাতির চেষ্টায় ব্যার্থ হয়েছে ডাকাত দল। এতে হাকিমপুর বাসির মধ্যে ডাকাতির আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

হারুনুর রশিদ জানান, প্রতিদিনের ন্যায় সহপরিবারে রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়লে গভীর রাতে ১০/১২ জন সদস্যের একটি ডাকাত দল দেশীয় অস্তশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাড়ির বাহির হতে ঘরের একটি জানালা খুলে বাড়িতে প্রবেশ করে।

এরপর শয়ন কক্ষে প্রবেশ করে তাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে হাত,পা ও চোখ বেধে বাড়িতে রাখা ৭০ হাজার টাকা, আড়াই ভরি স্বর্ণালংকার ও একটি দামি মোবাইল ফোন ও কাপড় চোপড় নিয়ে পালিয়ে যায়।

এছাড়াও সোমাবার রাতে থানা হতে এক কিলোমিটার দুরে ডাঙ্গাপাড়া মহল্লার কাঞ্চনের বাড়িতে ও রোববার রাতে থানা থেকে ৪ কিলোমিটার দুরে রাউতারা মহল্লার কালাম হোসেনের বাড়িতে ডাকাত দলের সদস্যরা তাদের বাড়ির প্রধান দরজার তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে শয় কক্ষের দরজা ভাঙ্গার সময় তাদের চিৎকার ও মোবাইল ফোন পেয়ে গ্রামবাসীরা এগিয়ে আসে। এতে ডাকাত দলের সদস্যরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে হাকিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুস সবুর জানান, অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদের বাড়িতে সংঘটিত ঘটনাটি ডাকাতি নয়, এটি চুরি। কালাম হোসেনের বাড়ির ঘটনাটি রহস্যজনক এবং কঞ্চনের বাড়ির বিষয়টি জানা নেই।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য