মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুর শহর এখন ইজিবাকি ও অটোরিক্সার শহরে পরিণত হয়েছে। ব্যাটারিচালিত অনিয়ন্ত্রিত এসব অটোরিক্সার কারণে প্রতিনিয়ত শহরের বিভিন্ন রাস্তায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। আর এতে করে সাধারণ মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। তবে গনগণের দুর্দশা লাঘবে অনিয়ন্ত্রিত এসব ইজিবাইক ও অটোরিক্সার বিরুদ্ধে শীঘ্রই অভিযান পরিচালনা করা হবে বলে জানিয়ে প্রশাসন।

দিনাজপুর শিল্প ও বণিক সমিতির প্রস্তাবে ও জেলা সমন্বয় উন্নয়ন সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দিনাজপুর পৌরসভাকে চলতি বছরের মার্চ মাসে সাড়ে ৩ হাজার ইজিবাইক ও অটোরিক্সার রেজিস্ট্রেশন নম্বর প্রদানের পরামর্শ দেয়া হয়। রেজিস্ট্রেশনের বাইরে কোন অটোরিক্সা ও ইজিবাইক শহরে না চালানোর জন্য ভ্রাম্যমান আদালত এবং ট্রাফিক পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়। কিন্তু এই নির্দেশনার প্রায় ৬ মাস পার হলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

বর্তমানে দিনাজপুর জেলা শহরে ওই সাড়ে ৩ হাজারের চেয়ে ৫ গুনেরও বেশী রেজিস্ট্রেশনধারী ইজিবাইক ও অটোরিক্সা চলাচল করছে। এর ফলে শহরে প্রতিনিয়ত যানজট তৈরী হচ্ছে, দূর্ঘটনায় প্রাণহানীসহ জানমালের ব্যাপত ক্ষতি হচ্ছে। যানজটের কারণে স্কুল-কলেজ-মাদরাসার শিক্ষার্থী, অফিসগামী মানুষ ও সাধারণ মানুষ সময়মত তাদের গন্তব্যে যেতে পারেন না।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য মতে, জেলা শহরে ইজিবাইক ও অটোরিক্সা চলাচলের ফলে সৃষ্ট যানজটে প্রতিমাসে অন্তত দুই শতাধিক মানুষ আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। ্এতে মানুষের আর্থিক ক্ষতিসহ সময়ও নষ্ট হচ্ছে।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত গত রোববারের মাসিক সমন্বয় সভার মূল প্রতিপাদ্য ছিল জেলা শহরের যানজট ও অটোরিক্সার বিষয়টি। এই সভায় উপস্থিত সবাই জেলা শহরে অনিয়ন্ত্রিত ইজিবাইক ও অটোরিক্সা চলাচল বন্ধে প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম বলেন, জেলা শহরে অনিয়ন্ত্রিত ব্যাটারীচালিত ইজিবাইক ও অটোরিক্সার বিরুদ্ধে শীঘ্রই অভিযান পরিচালনা করা হবে। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে দিনাজপুর পৌরসভার রেজিস্ট্রেশনবিহীন এবং শহরের বাইরে থেকে আসা সব ইজিবাইক ও অটোরিক্সা চলাচল নিয়ন্ত্রন করা হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য