তেঁতুলিয়ায় সর্বস্তরের জনসাধারণের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন। স্কুল ছাত্রী রহিমা আকতার সোনিয়া এর ধষর্কদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে ইউএনও’র মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি পেশ।

তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাসড়কের চৌরাস্তা বাজারের তেঁতুলতলায় উপজেলা বীরমুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কাজী মাহবুবুর রহমানের নেতৃত্বে এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচিতে কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, রণচন্ডিবাজার উচ্চ বিদ্যালয়, তেঁতুলিয়া পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, আজিজনগর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, তেঁতুলিয়া ডিগ্রী কলেজ, কালান্দিগঞ্জ সিনিয়র মাদরাসা, কালান্দিগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকমন্ডলী, সোনিয়ার গ্রামবাসী ও তেঁতুলিয়ার আপামর জনসাধারণ স্বতঃস্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধন কর্মসূচীর শুরুতে সোনিয়ার আত্মতার শান্তিতে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। মানববন্ধন চলাকালে তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাড়সকে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে এবং বিপুল সংখ্যক জনসাধারণের উপস্থিতিতে রীতিমত জনসমূদ্রে পরিণত হয়।

পরে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় ধর্ষক মনসুর আলী রাজন ও আতিকুর রহমান আতিক এর গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে বক্তব্য রাখেন জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও তেতুলিয়া উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুলতানা রাজিয়া, ৩নং তেঁতুলিয়া ইউ’পি চেয়ারম্যান কাজী আনিছুর রহমান, বিএনপির সহ-সভাপতি শাহাদৎ হোসেন রঞ্জু, জাপা’র সভাপতি মোখলেছুর রহমান, সোয়ানিয়ার পরিবারের পক্ষে বীরমুক্তিযোদ্ধা এম.এ. হান্নান, বীরমুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান, কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ ইমদাদুল হক, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুল বাসেত, কাজী মোখছেদ, জুলফিকার আলী জুয়েল, সাংবাদিকদের মধ্যে শহিদুল ইসলাম শহীদ, জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক লাইলী বেগম ও খন্দকার সামসুজ্জোহা নিয়াজিদ। এছাড়াও মানববান্ধনে তেঁতুলিয়াবাসির সাথে একত্বতা প্রকাশ করে মোবাইল ফোনে বক্তব্য রাখেন পঞ্চগড়-১ আসনে এমপি নাজমুল হক প্রধান ও আওয়ামীলীগ কেদ্রিয় নেত্রী সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি ফরিদা আক্তার হীরা। বক্তরা তেঁতুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সরেস চন্দ্র মামলা গ্রহণে বিলম্ব করায় তার বদলী ও শাস্তির দাবী করেন। এছাড়া পঞ্চগড়-২ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. ভোকেট নুরুল ইসলাম সূজনকে ধর্ষক আসামীদের রক্ষা না করার ব্যাপারেও হুশিয়ারী প্রদান করেন।

মানাববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্বারকলিপি পেশ করেন। কিন্তু উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অনুপস্থিতিতে উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শাহিন এই স্বারকলিপি গ্রহন করেন ।
উল্লেখ্য যে, কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী রহিমা আকতার সোনিয়া (১৪) গত ১০ অক্টোবর/১৭ ধর্ষকদের ব্লাক মেইল করা ধর্ষণের ভিডিও চিত্র মোবাইলে ধারণ করে পুনরায় ধর্ষণের অপচেষ্টা করেন। সোনিয়া দু’ধর্ষকের অব্যাহত প্ররোচনায় অতিষ্ঠ হয়ে নিজ বাড়িতে শয়ন ঘরের ধরনার সংগে উড়না পেছিয়ে ফাঁস লাগায়ে আত্মহত্যা করেন। উক্ত ঘটনায় সোনিয়ার মা সেলিনা বেগম বাদী হয়ে ধর্ষক রাজন ও আতিককে আসামী করে তেঁতুলিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ মামলা রেকর্ড করতে তালবাহানা করে ঘটনার ৫দিন পর নিয়মিত হত্যা মামলা হিসেবে রেকর্ডভুক্ত করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য