ভারতের বিজেপিশাসিত হরিয়ানা রাজ্যে গরুর গোশত বহনের সন্দেহে পাঁচজনকে গণপিটুনি দিয়েছে গো-রক্ষকরা।

আজ (শনিবার) গণমাধ্যমে প্রকাশ, দিল্লি-ফরিদাবাদ জাতীয় সড়কে একটি যাত্রীবোঝাই অটো রিকশাকে ঘিরে ধরে কয়েকজন দুর্বৃত্ত। তারা অটোর চালককে ‘ভারত মাতা কি জয়’ ও ‘জয় হনুমান’ শ্লোগান দিতে বলে। কিন্তু, তিনি তা বলতে রাজি হননি। এরপরেই আজাদ নামে ওই অটো চালককে গরুর গোশত নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে মাটিতে ফেলে নির্মমভাবে মারধর করা হয়। ওই দুর্বৃত্তদের হাত থেকে অটোর যাত্রীরাও রেহাই পাননি।

গণমাধ্যমে প্রকাশ, গুরুতর আহত অটো চালক বিকলাঙ্গ এবং তিনি অটোরিকশা চালিয়ে সংসার চালাতেন।

আক্রান্তদের অভিযোগ, হামলার ঘটনার সময়ে সেখানে কয়েকজন পুলিশ সদস্য উপস্থিত থাকলেও তারা কোনো সাহায্য করেননি।

তাছাড়া আক্রান্তদের বিরুদ্ধেই গরু পাচার বিরোধী আইনে পুলিশ মামলা করেছে বলে অভিযোগ।

আক্রান্ত চালক বলছেন, তাদের কাছে গরুর গোশত ছিল না। তিনি বলেন, যদি গরুর গোশত প্রমাণ হয় তাহলে ফাঁসি দিয়ে দিন কিন্তু যদি তা না হয় তাহলে এর সুবিচার চাই।

পুলিশের ডিসিপি আস্থা মোদি বলেন, গরু পাচার বিরোধী আইনে মামলা করা হয়েছে। মারধর করা লোকদের বিরুদ্ধেও মামলা করা হবে।

পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে প্রকাশ, অটোতে নিয়ে যাওয়া গোশত গরুর গোশত ছিল না। পুলিশ বলছে, ভিডিও ছবিতে যাদের মারধর করতে দেখা গেছে তাদের চিহ্নিত করে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এদিকে হরিয়ানার বিজেপি নেতা রমন মালিকের মতে, প্রকৃত গো-রক্ষকরা ওই ধরণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়। গো-রক্ষকদের নাম নিয়ে দুর্বৃত্তরা লোকজনকে মারধর করছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য