ইরাক সরকার সেদেশের আধা-স্বায়ত্বশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলের মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গতমাসে কুর্দিস্তানে অনুষ্ঠিত বিচ্ছিন্নতাবাতী গণভোটের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সোমবার মন্ত্রিসভার এক বৈঠকের পর এক বিবৃতিতে সরকার এ তথ্য জানিয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সরকারের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, কুর্দিস্তানে তৎপর মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে ফেডারেল সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকতে হবে এবং তাদেরকে নিজেদের সদর দপ্তর বাগদাদে নিয়ে আসতে হবে।

বিবৃতিতে অপারেটরগুলোর নাম উল্লেখ করা হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, কুর্দিস্তানের আঞ্চলিক রাজদানী আরবিল-কেন্দ্রীক মোবাইল ফোন অপারেট ‘কোরেক’ এবং ওই অঞ্চলের সুলাইমানিয়া-ভিত্তিক অপারেটর ‘এশিয়াসেল’কে এই নিয়ন্ত্রণের আওতায় আনা হবে। ইরাকের তৃতীয় মোবাইল ফোন অপারেটর ‘জাইন’ বাগদাদে বসে তার কার্যক্রম চালাচ্ছে।

বিবৃতিতে সরকারের এই নিয়ন্ত্রণ কবে থেকে কার্যকর হবে বা মোবাইল ফোন অপারেটররা বাগদাদের নির্দেশ অমান্য করলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে কিনা- সে সম্পর্কে কোনো ইঙ্গিত দেয়া হয়নি।

গতমাসে অনুষ্ঠিত গণভোটের প্রতিক্রিয়ায় এর আগে ইরাক সরকার কুর্দিস্তানে সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এ ছাড়া, ইহুদিবাদী ইসরাইল ছাড়া বিশ্বের আর সব দেশ গত ২৫ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত গণভোটের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য