পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের ঝল মাগসি জেলার একটি মাজারে চালানো আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১ জনে দাঁড়িয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঝল মাগসির ফতেহপুর শহরের পীর রাখেল শাহের দরগার প্রবেশ পথে হামলাটি চালানো হয়েছিল, এতে তাৎক্ষণিকভাবে এক পুলিশ কনস্টেবলসহ অন্তত ১২ জন নিহত হয়েছিল।

শুক্রবার লারকানা হাসপাতালে আরেকজন আহতের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ওই হামলায় নিহতের সংখ্যা ২১ জনে দাঁড়ায় বলে জানিয়েছে ডননিউজ।

মুসল্লিরা মাজারের দোয়া মাহফিলে সামিল হওয়ার সময়ই হামলাটি চালানো হয়। বৃহস্পতিবার দিনটিতে সাধারণত মাজারে মানুষের উপস্থিতি বেশি থাকে। সে কারণে হামলায় নিহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছিল।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইকবাল বলেছেন, মাজারের মূল প্রবেশপথে আত্মঘাতী হামলাকারীকে আটকানো হয়েছিল, কিন্তু মাজারে প্রবেশের চেষ্টাকালে রক্ষীরা তাকে আটকালে আত্মঘাতী বোমায় সে নিজেকে উড়িয়ে দেয়।

হামলার বিষয়ে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলো হামলার ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছে বলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

হামলায় আহত আরও ২৩ জন বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এছাড়া সামান্য আহত বহু মানুষকে চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

চলতি বছর পাকিস্তানে মাজারে চালানো এটি দ্বিতীয় প্রাণঘাতী হামলা। এর আগে ফেব্রুয়ারিতে সিন্ধুর শেহয়ানে লাল শাহবাজ কালান্দরের মাজারে চালানো আত্মঘাতী হামলায় ৮০ জন নিহত ও ২৫০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য