সিরাজুল ইসলাম (বিজয়), তারাগঞ্জ(রংপুর) থেকেঃ কিশোরীকে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় কিশোরীর পরিবার দিশহারা হয়ে পরেছে বলে কৌতুহলের সৃষ্টি হয়েছে।জানা গেছে,উপজেলা সয়ার ইউনিয়নের বাড়াপুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের সুরুজ মিয়ার বখাটে ছেলে মামুন হোসেন(১৬) একই গ্রামের সপ্তম শ্রেণির কিশোরীকে ইভটিজিং করে আসছে এ বিষয়ে একাধিক বার মামুনের পরিবারকে কিশোরীর পরিবার অভিযোগ করলেও কোন সমঝোতা হয়নি।

গত মাসে শেষ সপ্তাহে বুড়ীর হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম ও সহকারী শিক্ষক আরিফিন হাবীব (স্বপন),মহব্বত হোসেন,নাজমুল হোসেন,মনিরুজ্জামান(মিটুল),পিয়ন আব্দুল হালিম সহ এলাকার মুরব্বিগন বখাটে মামুন ও তার পরিবারকে প্রথম বারের মত ক্ষমা করে দেয়।

পরবর্তীতে ঐ ঘটনার সূত্র পাতে কোন ক্রমে যেন না জরায় একথা বলে সর্তক করে দেয় প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম। সমাজে বেহায়াপনা নেশা খোরদের লজ্জাবোধ বলতে কিছু নেই।কিন্তু প্রধান শিক্ষক বখাটে মামুন ও তার পরিবারকে সতর্ক করে দিলেও তা কোন ফল হয় নাই।

গত রবিবার সকাল ১১ টায় আবারও মামুন ঐ কিশোরীকে ইভটিজিং করে।মামুন এসিড নিক্ষেপ সহ নানা ভয়ভীতি দিয়ে আসছে ঐ কিশোরীকে। কিশোরীর পরিবার দিশেহাড়া হয়ে পরেছে।এলাকাবাসী ও স্হানীয় প্রসাশনের কাছে কিশোরী ও কিশোরীর পরিবার বিচার প্রার্থনা করছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য