‘সচেতনভাবে লাখ লাখ কাতালানকে উপেক্ষা’ করার জন্য স্পেনের রাজা ষষ্ঠ ফেলিপের সমালোচনা করেছেন কাতালান নেতা কার্লেস ‍পুজদেমন।

বিবিসি জানিয়েছে, বুধবার রাতে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক বক্তব্যে পুজদেমন, কাতালুনিয়ার গণভোট প্রসঙ্গে রাজা স্পেনীয় সরকারের অবস্থান অবলম্বন করেছেন বলে অভিযোগ করেন।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে স্পেনের রাজা ফেলিপে টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছিলেন; ভাষণে কাতালানদের রোববারের গণভোটকে ‘অবৈধ’ ও ‘অগণতান্ত্রিক’ বলে বর্ণনা করেন তিনি।

এর ২৪ ঘন্টা পর দেওয়া বক্তব্যে পুজদেমন বলেন, “স্পেনের সংবিধান রাজাকে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা দিলেও তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছেন।”

এর প্রতিক্রিয়ায় মাদ্রিদ থেকে স্পেনীয় সরকার বলেছে, তারা কাতালান নেতার ‘ব্ল্যাকমেইল’ গ্রহণ করবে না।

এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, কোনো ধরনের আপস-আলোচনা হওয়ার আগে পুজদেমনকে আইনের পথে ফিরে আসতে হবে। রাজাকে করা তার সমালোচনায় সে যে ‘বাস্তবতার বাইরে আছে’ তা প্রদর্শিত হয়েছে বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পুজদেমন বলেছিলেন, ‘চলতি সপ্তাহের শেষে অথবা আগামী সপ্তাহের শুরুতে’ তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে পারেন।

কাতালুনিয়ার সরকার জানিয়েছে, আসছে সোমবার গণভোটের ফলাফল নিয়ে আলোচনার জন্য কাতালান পার্লামেন্টে একটি ‘বিশেষ’ বৈঠক হতে পারে।

কাতালুনিয়ার কর্মকর্তারা গণভোটে স্বাধীনতার পক্ষে প্রায় ৯০ শতাংশ ভোট পড়েছে দাবি করলেও এখনও পর্যন্ত ভোটের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করেননি। গণভোটে ৪২ শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছে বলে হিসাব করা হয়েছে।

বুধবার রাতে দেওয়া বক্তব্যে কাতালুনিয়ার সম্ভাব্য স্বাধীনতা ঘোষণা প্রসঙ্গে নতুন করে বিস্তারিত কিছু বলেননি পুজদেমন। ‘স্পেনীয় থেকে যারা কাতালান’ হয়ে উঠেছেন, সেই সব স্পেনীয় নাগরিকদের কাতালুনিয়ার প্রতি ‘সংহতি’ প্রকাশের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে স্পেনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলটির এক সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, সোমবারই স্পেন থেকে আলাদা হতে স্বাধীনতা ঘোষণার উদ্যোগ নেবে কাতালুনিয়া।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য