ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির, খনি শ্রমিকেরা চুক্তি মোতাবেক বেতন ভাতা পরিশোধ করার দাবীতে, দির্ঘ এক সপ্তাহ কর্মবিরোতি কর্মসূচি পালন করার পর, কর্তৃপক্সের দেয়া আশ্বাসে কর্মসূচি স্থগীত ঘোষনা করে, আজ বুধবার সকাল থেকে কাজে যোগ দিয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকালে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের উদ্যোগে খনির সভাকক্ষে, আন্দোলনরত খনি শ্রমিকদের সাথে এক সমজোতা বৈঠক বসে। সমজোতা বৈঠকে শ্রমিকদের সাথে সম্পাদিত চুক্তি মোতাবেক বেতন ভাতা, আগামী দুই মাসের মধ্যে পরিশোধ করার আশ্বাস দিলে, শ্রমিকরা তাদের কর্মসূচি আগামী দুই মাসের জন্য স্থগীত ঘোষনা করে, আজ বুধবার সকাল থেকে কাজে যোগ দেয়।

সমজোতা বৈঠকে উপস্থিত ছিণের, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহম্মেদ, মহা ব্যবস্থাপক (মাইনং) নুরুজ্জামান চৌধুরী, মহা ব্যবস্থাপক এবিএম কামরুজ্জামান, মহাব্যবস্থাপক (প্রসাশন) শরিফুল হক, বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রবীউল ইসলাম ও সাবেক সাধারন সম্পাদক নুর ইসলাম এর নেতৃত্বে ২০জন শ্রমিক প্রতিনিধি।

উল্লেখ্য কর্তৃপক্ষের দেয়া প্যাকেজ এর চুক্তি মোতাবেক বেতন-ভাতা পরিশোধ করার দাবীতে গত ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে দুই ঘন্টা করে কর্মবিরোতি কর্মসূচি পালন করে আসচ্ছে খনি শ্রমিকরা। এতে তাদের দাবী পুরন না হলে, আরো কঠোর আন্দোলনের ঘোষনা দেন আন্দোলনরত শ্রমিকগণ। দির্ঘ এক সপ্তাহ কর্মসূচি পালন করার পর, গত মঙ্গলবার বিকালে খনিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের নেতৃত্বে, আন্দোলনরত শ্রমিকদের সাথে এক সমজোতা বৈঠক বসে। সমজোতা বৈঠকে শ্রমিকদের দেয়া দাবী পুরন করার আশ্বাস দেয়ায়, শ্রমিকগণ তাদের কর্মসুচি প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দেয়।

বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রবীউল ইসলাম বলেন শ্রমিকদের দির্ঘ আন্দোলনের ফলে চলতি সানের গত ১ জানুয়ারী জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রি নসরুর হামিদ এর উপস্থিতে চিনা কোম্পানীর অধিনে কর্মরত শ্রমিকদের একটি আর্থি প্যাকেজ ঘোষনা হয়, সেই প্যাকেজ অনুযায়ী চলতি সনের ১১ আগষ্ঠ চিনা কোম্পানীর সাথে বড়পুকুরিয়া কোর মাইনিং কোম্পানী লিঃ খনিটির উন্নায়ন ও উৎপাদন চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশ সরকারের আইন অনুযায়ী শ্রমিকরা নিদ্ধারীত ছুটি ভোগ করতে পারবে, এবং ছুটির দিনের সকল সুবিধা পাবে, কিন্তু চিনা কোম্পানী সেই চুক্তির সর্তভঙ্গ করে শ্রমিকদের ছুটির দিনের সুধু মুল বেতন রেখে অনান্য সুবিধা থেকে বঞ্চিত করছে। এই কারনে শ্রমিকেরা বেতন গ্রহন না করে চুক্তির সর্ত মোতাবেক বেতন ভাতা পরিশোধের দাবীতে আন্দোলনে নামে।

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, বাংলাদেশ সরকারের সকল আইন মেনে কাজ করার চুক্তি হয়েছে চিনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠা এক্সএমসি’র সাথে এখন তারা বাংলাদেশ সরকারের আইন না মেনে তাদের দেশের আইন মোতাবেক শ্রমিকদের বেতন-ভাতাসহ সুবিধাদি প্রদান করতে যাচ্ছে, এতে বাংলাদেশী শ্রমিকদের সাথে বিরোধের সুষ্ঠি হয়, তাদের সৃষ্ট বিরোধ নিস্পত্তির জন্য কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের সাথে সমজোতা বৈঠকে বসে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য