তেঁতুলিয়া উপজেলার ডাহুক নদী থেকে নূড়ি পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে প্রাচীন কালের দুর্লভ একটি পাথর পাওয়া গেছে। জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহানহাট ইউনিয়নের সীমান্ত সংলগ্ন পেদিয়া গছ গ্রামের ডাহুক নদীতে এই পাথরটি পাওয়া যায়।

শালবাহান রোড নারায়নগছ গ্রামের জহিরদ্দিনের-এর ছেলে রাজিউল দীর্ঘদিন থেকে ২০-২৫ জনের একটি দল নিয়ে নদী থেকে পাথর উত্তলনের কাজ করে আসছে। প্রতিদিনের ন্যায় গত সোমবার ঐ এলাকার নদীতে দল নিয়ে পাথর উত্তোলনের সময় হঠাৎ একটা বড় পাথর পানির ১০ ফিট নিচে দেখতে পায়।

এ সময় বিষয়টি নিজেদের দলের সকলের মাঝে জানা জানি হলেও বাহিরের কাউকে জানতে দেয়নি। নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক একজন শ্রমিক জানায় আমরা গোপনে বিষয়টি ভালো মানুষের সাথে কথা বলি। তারা জানায় এই পাথরটির দাম শত কোটি টাকা।

এরপর শুরু হয় ক্রেতা খোজা আর পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজ। কাউকে বুঝতে না দিয়ে দল বেঁধে গত তিন দিন থেকে রাত জেগে পাহারা দেয়া হয়। হাজার হাজার টাকা খরচা করে বিশেষজ্ঞরা জানায় এটি সাধারণ পাথর সে সময় যে শ্রমিকদের মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পরার মত। এরপরও তারা হাল ছারতে রাজি না সর্বশেষ আজ বুধবার সকালে ১০টি মোবাইল পলেথিনে মুরিয়ে পানির ১০ ফিট নিচে পাথরের কাছে দীর্ঘখন রেখে পরিক্ষা করে হতাস হয়ে পরে সকলে।

এরপর আশে-পাশের সকল শ্রমিকে ডেকে প্রায় শতাধিক শ্রমিক মিলে পাথরটিকে পানি থেকে উপরে তুলে আনে। মুহুর্তের মধ্যে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। হাজার হাজার মানুষ পাথরটিকে এক নজর দেখতে নদীতে ভির জমায়। প্রাচীন কালের এই দুর্লভ পাথরটির ওজন হতে পারে প্রায় ৩০ মন। এ সময় উপস্থিত পাথর ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে পাথরটির দাম হতে পারে দুই হাজার টাকা।

খবর পেয়ে তেঁতুলিয়া মডেল থানার পুলিশসহ পেদিয়া গছ বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা ঘটনা স্থলে ছুটে আসেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য