মাহবুুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুর পৌরসভার স্বল্প আয়ের মাষ্টার রোল কর্মচারীরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। পৌর কর্তৃপক্ষ দ্রুত তাদের বেতনভাতা বৃদ্ধি ও এক অফিসে দ্বৈতনীতি পরিহার না করলে আমরন অনশনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

দিনাজপুর পৌরসভার কয়েকজন মাষ্টার রোল কর্মচারী জানান, বর্তমানে পৌরসভায় ৩৫০ জন মাষ্টার রোল কর্মচারী রয়েছেন। তাদের মধ্যে কেউ কেউ ১০-২৫ বছর ধরে মাষ্টার রোল কর্মচারী হিসেবে পৌরসভায় চাকরি করে আসছেন। এসব কর্মচারী ১৬০ টাকা বেতনে দিন হাজিরার ভিত্তিতে কাজ করছেন। বর্তমান দ্রব্যমূল্যের বাজারে এই বেতনে পরিবার-পরিজন নিয়ে চলা তো দুরের কথা, এই বেতনে নিজেরই দু’বেলা পেটের ভাত যোগাড় করা কঠিন। এই স্বল্প বেতনে তারা স্ত্রী সন্তানদের নুন্যতম চাহিদা পূরণ করতে পারেন না। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে দুর্বিসহ ও মানবেতর জীবনযাপন করছেন এবং মানসিকভাবেও ভেঙ্গে পড়েছেন তারা।

তারা আরো জানান, দিনাজপুর পৌরসভার মাষ্টার রোলে কর্মরত ৩৫০ জন কর্মচারীর মধ্যে ১২০ জন কর্মচারীকে দৈনিক ২৫০ টাকা করে বেতন দেয়া হলেও অন্য কর্মচারীদের ১৬০ টাকা বেতন দেয়া হয়। এই নিয়েও তাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বেতন বৈষম্যের কারণে বঞ্চিত কর্মচারীরা মানসিক অশান্তিতে ভুগছেন। তারা জানান, এক পৌরসভায় দুই আইন থাকতে পারে না। এসব বিবেচনায় ও তাদের কষ্টের কথা চিন্তা করে দ্রুত বেতন বৃদ্ধিসহ বেতন বৈষম্য দুর করতে দিনাজপুর পৌরসভার মেয়রসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন তারা। অন্যথায় আমরণ অনশনসহ যে কোন ধরনের কঠোর কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম জানান, পৌর পরিষদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে শুধুমাত্র পরিচ্ছন্ন শাখার কর্মীদের বেতন বাড়ানো হয়েছে। পৌরসভার আয় কম। তাই সবার বেতন বাড়ানো সম্ভব হয়নি। ভবিষ্যতে আয় বাড়লে পৌর পরিষদের সাথে আলোচনা করে সব মাষ্টাল কর্মচারীদের বেতন বাড়ানো হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য