কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ কাহারোলে সরকারী আশ্রয়নে বসবাসরত দরিদ্র দিন মজুর মসলিমা বেগমের মেধাবী ছেলে মোহাম্মদ আলী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে লেখা-পড়ার খরচ বহনের দায়িত্ব নিয়েছেন। দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার ১নং ডাবোর ইউনিয়নে নির্জন পল্লীতে অবস্থিত সরকারী ডহচী মধুহারী আশ্রয়ন কেন্দ্রটি।

সেই আশ্রয়ন কেন্দ্রে গরিব ও অসহায় দিন-মজুর মোছাঃ মসলিমা বেগমের মেধাবী ছেলে মোহাম্মদ আলী (১৮) স্থানীয় জয়নন্দ এস,সি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস,এস,সি মানবিক বিভাগ ৪.৯৪ এবং জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজ থেকে এইচ,এস,সি মানবিক বিভাগ ৪.৮৩ জিপিএ প্রাপ্ত হয়ে উচ্চ শিক্ষার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার জন্য আবেদন করলে সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে খ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। কিন্তু অভাবী ও দরিদ্র সংসারে বিধবা এবং দিনমজুর মায়ের পক্ষে তার পড়ালেখার খরচ চালানো অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

পিতৃহীন মেধাবী ছাত্র মোহাম্মদ আলী উচ্চ শিক্ষার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় তার বিধবা মা মোছাঃ মসলিমা বেগম ভর্তির সংবাদ পেয়ে খুশিতে দিশেহারা হয়ে পড়ে এবং এলাকাবাসীর মধ্যেও খুশির বন্যা বইতে দেখা গেছে। কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের বিষয় দিনমজুর মায়ের পক্ষে তার সন্তানের লেখাপড়ার খরচ বহন করার অসম্ভব হয়ে পড়েছে বলে বিধবা মোছাঃ মসলিমা বেগম এই প্রতিনিধি কে জানান।

সরকারী ডহচী মধুহারী আশ্রায়ন কেন্দ্রে বসবাস করে মোহাম্মদ আলী আজ মেধাবী ছাত্র হিসাবে সুনাম অর্জন করছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় দৈনিক পত্রিকা সমূহে এই সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশিত হলে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলমের দৃষ্টিগোচর হওয়ায় তাৎক্ষনিক কাহারোল উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে দিক নির্দেশনা প্রদান করলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে ৩ অক্টোবর’১৭ সাহায্য হিসেবে ৪ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

এদিকে নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাসিম আহমেদ-এর সঙ্গে এব্যাপারে কথা হলে তিনি জানান, উপজেলার ডহচী মধুহারী সরকারী আশ্রায়ন কেন্দ্রে পিতৃহীন ও দিনমজুর মোছাঃ মসলিমা বেগম এর মেধাবী ছাত্র মোহাম্মদ আলী কে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১ বছর ব্যাপী প্রতিমাসে ২ হাজার টাকা করে লেখাপড়ার খরচ বাবদ প্রদান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

তিনি এলাকার বৃত্তবান ব্যক্তিদের তার প্রতি এগিয়ে আসার আহবান জানান। মেধাবী ছাত্র মোহাম্মদ আলী জানায়, লেখাপড়া করে ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠিত হয়ে সমাজ সেবা করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এব্যাপারে অনেকেই মন্তব্য করে বলছেন একেই বলে, মানুষ মানুষের জন্য।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য