ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিংয়ে পৃথক গোর্খাল্যান্ড দাবিতে চলা অনির্দিষ্টকালের জন্য বনধের অবসান হওয়ায় সেখানে জনজীবন স্বাভাবিক হচ্ছে। দীর্ঘ সাড়ে তিন মাস ধরে সেখানে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার আহ্বানে বনধ-অবরোধ কর্মসূচি চলছিল।

দার্জিলিং, কালিম্পং কার্সিয়াংসহ গোটা পাহাড়েই দোকানপাট ও বাজার খোলা রয়েছে। বাস এবং অন্যান্য গাড়ির পরিসেবাও চালু হয়েছে।

গত মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রধান বিমল গুরুংকে বনধ প্রত্যাহার করার আবেদন জানানো হয়। এ দিন সন্ধ্যায় গুরুং বিবৃতি দিয়ে আজ বুধবার সকাল ৬টা থেকে বনধ তুলে নেয়ার কথা ঘোষণা করেন।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং পাহাড় নিয়ে স্বরাষ্ট্রসচিবকে আলোচনার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পাহাড় ইস্যুতে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হবে।

এদিকে, আজ সকাল থেকে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে যাওয়ায় দার্জিলিং, মিরিক, কার্শিয়াং, পানিঘাটা, গাড়িধুরা প্রভৃতি স্থানে যান চলাচল শুরু হয়েছে।

রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব অবশ্য বিমল গুরুংয়ের বনধ প্রত্যাহার করার ঘোষণাকে বিশেষ আমল দিতে চাননি। কেন্দ্রীয় সরকার আসলে গুরুংয়ের মুখ রক্ষা করার সুযোগ করে দিয়েছে বলে তিনি বলেন। আসলে গুরুংকে অমান্য করেই পাহাড়ি এলাকায় ৮০ শতাংশের বেশি দোকান ও বাজার খুলে গেছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য