মোঃ আবেদ আলী, বীরগঞ্জ থেকেঃ বীরগঞ্জে পৌরসভায় বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব কতৃপক্ষ নিরব দর্শক জনমনে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, পৌরসভার বসুন্ধরা, শান্তিবাগ, বলাকা মোড়, কলেজ মোড়, শহীদ মিনার, পশু জবাইখানা, আরিফ বাজার, জেলখানা, টিএনটি মোড়, উপজেলা পরিষদের সদর গেট, পৌর ভবনের সামনে দলে দলে বেওয়ারিশ কুকুর উগ্র মেজাজে দলবেধে দৌড়-ঝাপ করেেছ। কুকুর দলের উগ্রভাব দেখে মনে হয় কোমলমতি শিশু ছাত্র-ছাত্রী তো দুরের কথা যে কোন মুহুর্তে বয়স্ক মানুষকে একা পেলে আক্রমন করতে পারে।

পৌরসভার ৯নং-ওয়ার্ডের বাসিন্দা আবু সুফিয়ান, আব্দুর রাজ্জাক, তোতা মিয়া, পৌরসভা হাটখোলা এলাকার রমজান আলী, আব্দুস সামাদ, সুজালপুর মহল্লার আজিজার রহমান, জামাল উদ্দিন, সেন্টার পাড়ার কাশেম আলী, মহসিন আলী, মাকড়াই গ্রামের আব্দুল হামিদ ও জহুরুল সহ অনেকের জানান, কোলমমতি ছেলে-মেয়েদের স্কুল-কলেজ মাদ্রাসায় পাঠিয়ে আমরা অভিভাবক বাড়ীতে দুশ্চিন্তায় ভুগছি। বেওয়ারিশ এমন কি পাগলা কুকুরের আক্রমনে সন্তানেরা জলাতংক রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

নারায়ন রায় জানান, বেওয়ারিশ কুকুরের ব্যাপকতায় সার্বজনিন দূর্গাপুজা মন্ডবে সন্তানেরা নিরাপদে বাড়ী থেকে বের হতে পারছে না। ঘর থেকে বের হলেই দলবদ্ধ কুকরের উপদ্রপ এলোপাথারী ছুটাছুটি করতে দেখা যায়। পৌর কর্তৃপক্ষ সব কিছুর টেক্স বাড়িয়েছে কিন্তু সেবার বাড়ায়নি। রাস্তা দিয়ে হাটলেই ড্রেনে জমে থাকা ময়লার দুর্গন্ধ।

বিশেষ করে সরকারী ডিগ্রী কলেজের পূর্বে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব সারোয়ার হোসেনের কার্যালয়ের সামনে মুজাহিদুল ইসলামের পান দোকান, তাজমহল সিনেমা হলের বিপরীতে ফুটপাত নমিরুল ইসলাম চৌধুরী সেনার মার্কেটে ঘেসে চা-পানের দোকনে ও আশা সুইটসে’র সামনে দুর্গন্ধে নিশ্বাস নেয়া কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে।

বাস্তবে জনগনের নানান অভিযোগ থাকলেও পৌর কর্তৃপক্ষ নিরব দর্শক। অভিযোগ করেও সমস্যার সমাধান হয় না। পৌরবাসী সকল অনিয়মের দ্রুত সমাধানের দাবী জানান। ইতোমধ্যে পৌরবাসী সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এমন ঘটনায় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করে একটি স্ট্যাটাস পোষ্ট করেছেন কিন্তু এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত কুকুর নিধন বা অন্যান্য সমস্যা সমাধানের কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

পৌর মেয়র আলহাজ্ব মাওঃ মোহাম্মদ হানিফ জানান, বেওয়ারিশ কুকুর নিধন করা সহ সকল সমস্যা সমাধানে পৌর কর্তৃপক্ষ সতর্ক রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য