সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে করা স্বাস্থ্যসেবা বিল বাতিল করে নতুন একটি বিল পাসের চেষ্টায় ফের ব্যর্থ হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র সিনেটের রিপাবলিকান সদস্যরা।

প্রয়োজনীয় সমর্থন জোগাড় করতে না পারায় মঙ্গলবার ট্রাম্প প্রশাসনের নতুন স্বাস্থ্যসেবা বিলটি ভোটে দেওয়া হয়নি বলে রিপাবলিকান সিনেটরদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়টার্স।

চার রিপাবলিকান সিনেটর নতুন এই বিলটি তুলেছিলেন। বিলটি নিয়ে তারা ফের চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন। কিন্তু বিশেষ আইনের অধীনে কেবল রিপাবলিকানদের সমর্থন নিয়ে বিলটি পাসে তাদের হাতে রোববার পর্যন্ত সময় আছে।

১০০ সদস্যের সিনেটে রিপাবলিকান পার্টির সদস্য সংখ্যা ৫২। বিশেষ আইনের অধীনে চলতি অর্থবছরের মধ্যে সিনেটে বিল পাসের ক্ষেত্রে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারলেই চলবে।

রোববারের পর একই বিল পাস করতে ন্যূনতম ৬০ জন সিনেটরের সমর্থন লাগবে। ওবামাকেয়ার বাতিলে তখন রিপাবলিকান সিনেটরদের পাশাপাশি কয়েকজন ডেমোক্রেট সিনেটরকেও পাশে পেতে হবে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আগের বারের মতো এবারও দক্ষিণ ও মধ্যপন্থি রিপাবলিকানরা নতুন স্বাস্থ্যসেবার বিলে আপত্তি জানায়।

মধ্যপন্থি হিসেবে পরিচিত রিপাবলিকান সিনেটর সুসান কলিন্স নতুন বিলের ব্যাপারে আপত্তি জানিয়ে বলেছেন, এটি দরিদ্রদের চিকিৎসাসেবাকে অবমূল্যায়নের পাশাপাশি ভোক্তা সুরক্ষা ব্যবস্থাপনাকেও দুর্বল করবে।

রক্ষণশীল রিপাবলিকান সিনেটর রেন্ড পলও নতুন বিলের বিরোধিতা করেছেন।

“সত্যিকার অর্থে আমরা সময় সংকটে ভুগছি,” বলেন সিনেটর রন জনসন। তার সঙ্গে সিনেটর বিল কাসিডি, লিন্ডসে গ্রাহাম ও ডিন হেলার নতুন এই বিলটি আনেন বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘কিছু সংখ্যক তথাকথিত রিপাবলিকানদের’ কারণে নতুন স্বাস্থ্যসেবা বিল পাসে হতাশার কথা জানালেও বলেছেন, ওবামাকেয়ার বাতিলের আশা তিনি ছাড়ছেন না।

“এটা বাতিল হবেই,” নিউ ইয়র্কে অর্থ উত্তোলনের এক কর্মসূচিতে যাওয়ার পথে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ডেমোক্রেটরা জানিয়েছে, কোটি কোটি নাগরিককে স্বাস্থ্যবীমার আওতায় নিয়ে আসা ওবামাকেয়ার রক্ষা করতে তারা বদ্ধ পরিকর; বাতিল নয় প্রয়োজনে বিলটির ত্রুটি সারাতে তারা রিপাবলিকান সিনেটরদের সঙ্গে নিয়ে কাজ করার কথাও বলছে।

রিপাবলিকান ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের শুরু থেকে ওবামার সিগনেচার বিল হিসেবে পরিচিত অ্যাফোর্ডেবল কেয়ার অ্যাক্ট বাতিলের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছিলেন।

রিপাবলিকানরাও অনেকদিন ধরেই বলে আসছে, ২ কোটি মার্কিন নাগরিককে স্বাস্থ্যসেবার আওতায় আনতে গিয়ে রাজস্বের ওপর বেশ চাপ পড়ছে।

কিন্তু সাত বছর ধরে চেষ্টার পরও ওবামাকেয়ার বাতিল করতে না পারায় রিপাবলিকান সিনেটররা ট্রাম্পের এজেন্ডা বাস্তবায়নে আসলেই সক্ষম কি না, নতুন করে সেই প্রশ্ন উঠেছে।

কংগ্রেসের দুই কক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকা সত্ত্বেও চলতি বছর অভ্যন্তরীণ নীতির ক্ষেত্রে বড় ধরনের সফলতার দেখা পায়নি রিপাবলিকানরা; যা ২০১৮-র কংগ্রেসনাল নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারে বলে আশঙ্কা করছে রিপাবলিকান শিবির।

আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন, হার্ট অ্যাসোসিয়েশন, ক্যান্সার সোসাইটি এবং এএআরপির মতো বীমা কোম্পানি, হাসপাতাল ও চিকিৎসা সংক্রান্ত অ্যাডভোকেসি গ্রুপগুলোও রিপাবলিকানদের আনা নতুন বিলটির বিরোধিতা করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য