হাকিমপুর (দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুরের হাকিমপুরের হিলি সীমান্ত পথে সোমাবার রাতে ভারতে পাচারের প্রাক্কালে আন্তজাতিক নারী ও শিশু পাচারকারী চক্রের কবল থেকে আছলাম হোসেন (১২) ও ফজলে রাব্বি (১৩) নামক দু’ মাদ্রাসা ছাত্র পালিয়ে রক্ষা পেল।

তারা ঢাকার যাত্রাবাড়ি হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র। আছলাম হোসেন নারায়নগঞ্জ জেলার সিদ্ধীরগঞ্জ থানার মিজমিজি গ্রামের আব্দুল আলিম হোসেনের ছেলে এবং ফজলে রাব্বি ঢাকার ওয়ারির গুপিকেশন রোড়ের সলিমুল্লাহ স্কুলের সামনের হায়দার আলীর ছেলে।

পুলিশ ও অপহৃতরা জানান, গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫ টার দিকে আছলাম হোসেন তার সহপাঠী ফজলে রাব্বীকে সঙ্গে নিয়ে মাদ্রাসার গেটের সামনের একটি দোকানে পাঁশশত টাকার নোট খুচরা করতে যায়। কিন্তু ওই দোকানদার টাকা খুচরা করে দিতে না পারায় তারা ফিরে আসার সময় দোকানের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা এক অপরিচিত ব্যাক্তি টাকা খুচরা করে দিতে চেয়ে আছলাম হোসেনের নিকট থেকে টাকাটি নেবার পর তারা দু’জনেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

এরপর তারা নিজেদের একটি আবদ্ধ ঘরে আবিষ্কার করে। আর ৯ দিন যাবৎ চলে তাদের বন্দি দশা। এসময় তাদেরকে একাধিকবার ইঞ্জেকশন দিয়ে অচেতন করা হয়েছে। এরপর সোমবার ওই চক্রের চারজন সদস্য তাদেরকেসহ আরো ১২জন অপহৃত কিশোরদের নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে করে অজ্ঞাত স্থালে যাবার এক পর্যায়ে অপহরনকারী দলে সদস্যরা সড়কের পাশে মাইক্রোবসাটি থামিয়ে পাশেই দাঁড়িয়ে রাখা অপর একটি মাইক্রোবাসে তাদের উঠানোর সময় এই দুজন দৌড়ে পালিয়ে যায়। এতে অপহরণকারীরা অবস্থা বেগতিক বুঝে মাইক্রোবাস দুটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

এসময় হাসান চৌধুরী নামক এক ব্যাক্তি তাদেরকে উদ্ধার করেন। তখন তারা জানতে পারে যে স্থানটি হিলি সীমান্ত সংলগ্ন সিপি রোড এলাকা। থানাপুলিশ খবর পেয়ে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করান। এবং তাদের স্ব স্ব অভিভাবকদের নিকট খবর দেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের অভিভাবকদের নিকট হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য