আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে দাবী পুরন না হলে বুধবার থেকে কর্মবিরোতি।

ফুলবাড়ী( দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে চুক্তি অনুযায়ী বেতন ভাতা পরিশোধ না করায়, আবারো আন্দোলনে নেমেছেন, খনিটির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চিনা এক্সএমসি এর সিএমসির অধিনে কর্মরত বাংলাদেশী খনি শ্রমিকেরা।

আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে দাবী পুরন না হলে, আগামী বুধবার থেকে কর্মবিরোতি কর্মসুচি ঘোষনা করেছেন খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রবীউল ইসলাম।

শ্রমিকদের দাবী নিয়ে আজ রোববার সকাল ১১ টায় বড়পুকুরিয়া কোলমাইনিং কোম্পানী লিঃ ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সিএমসির উর্দ্ধতন কর্মকর্তা এবং শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সাথে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কার্য্যলয়ে একটি সমজোতা বৈঠক বসে, সমজোতা বৈঠকটি কোন প্রকার সিদ্ধান্ত ছাড়ায় ভেঙ্গে গেলে শ্রমিকরা খনিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর স্মারকলীপি প্রধান করে এই আন্দোলনের ঘোষনা দেন।

সমজোতা বৈঠকে উপস্তিত চিলেন, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনং কোম্পানী লিঃ এর মহা ব্যবস্থাপক (প্রসাশন) শরিফুর ইসলাম, মহাব্যবস্তাপক কামরুজ্জামান, মহা ব্যবস্থাপক সাইফুর ইসলাম। চিনা ঠিকাদারী প্রতিস্ঠানের সাইট প্রতিনিধি উ-চেং ইয়াং এর নেতৃত্বে তিন পদস্থ কমৃকর্তা ও বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রবীউল ইসলাম, সাবেক সাধারন সম্পাদক নুর ইসলামসহ ১০ শ্রমিক নেতা।

শ্রমিক নেতারা বলেন শ্রমিকদের দির্ঘ আন্দোলনের ফলে চলতি সানের গত ১ জানুয়ারী জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রি নসরুর হামিদ এর উপস্থিতে চিনা কোম্পানীর অধিনে কর্মরত শ্রমিকদের একটি আর্থি প্যাকেজ ঘোষনা হয়, সেই প্যাকেজ অনুযায়ী চলতি সনের ১১ আগষ্ঠ চিনা কোম্পানীর সাথে বড়পুকুরিয়া কোর মাইনিং কোম্পানী লিঃ খনিটির উন্নায়ন ও উৎপাদন চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশ সরকারের আইন অনুযায়ী শ্রমিকরা নিদ্ধারীত ছুটি ভোগ করতে পারবে, এবং ছুটির দিনের সকল সুবিধা পাবে, কিন্তু চিনা কোম্পানী সেই চুক্তির সর্তভঙ্গ করে শ্রমিকদের ছুটির দিনের সুধু মুল বেতন রেখে অনান্য সুবিধা থেকে বঞ্চিত করছে। এই কারনে শ্রমিকেরা বেতন গ্রহন না করে চুক্তির সর্ত মোতাবেক বেতন ভাতা পরিশোধের দাবীতে আন্দোলনে নেমেছে।

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানী লিঃ কর্তৃপক্ষরা জানায় বাংলাদেশ সরকারের সকল আইন মেনে কাজ করার চুক্তি হয়েছে চিনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠা এক্সএমসি’র সাথে এখন তারা বাংলাদেশ সরকারের আইন না মেনে তাদের দেশের আইন মোতাবেক শ্রমিকদের বেতন-ভাতাসহ সুবিধাদি প্রদান করতে যাচ্ছে, এতে বাংলাদেশী শ্রমিকদের সাথে বিরোধের সুষ্ঠি হয়েছে। তবে বিষযটি নিষ্পতির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে খনি কর্তৃপক্ষ জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য