আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ী ও সাদুল্লাপুর উপজেলা থেকে প্রায় ১শ’ ১২ মে. টন চাল ও নগদ ১০ লাখ ৫৮ হাজার ৬৬৯ টাকা জব্দ করা হয়েছে। এসময় ৫টি গুদাম সিলগালা করা হয়। শনিবার রাত সাড়ে ১১টায় গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের ঢোলভাঙ্গা বাজারে মেসার্স খন্দকার ট্রেডার্সের ৫টি গোডাউন থেকে এসব চাল ও টাকা জব্দ করা হয়।

গাইবান্ধার নিবাহী ম্যাজিস্ট্রট এস.এম আশিক রেজা এ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযান শেষে গুদামগুলো সিলগালা করা হয়। মেসার্স খন্দকার ট্রেডার্সের মালিক হারুনার রশিদ পলাশবাড়ী উপজেলার ঝালিঙ্গি গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হক খন্দকারের ছেলে।

নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম আশিক রেজা জানান, খন্দকার ট্রেডাসের মালিক দীঘদিন থেকে তার গুদামগুলোতে চাল মজুদ করে অবৈধভাবে পাইকারি ব্যবসা করে আসছিল। এ তথ্যের ভিত্তিতেই ওই গোডাউনগুলোতে অভিযান চালানো হয়। এসময় পাঁচটি গুদাম থেকে অবৈধভাবে মজুদ করা ১১১ দশমিক ৬শ’ মে. টন ৫০ কেজি ওজনের ২ হাজার ২শ’ ২৬ বস্তা চাল জব্দ করা হয়।

এছাড়া গুদামে থাকা ৩ হাজার ১শ’ ৭১টি খালি চটের বস্তা ও নগদ ১০ লাখ ৫৮ হাজার ৬৬৯ টাকা জব্দ করা হয়। এব্যাপারে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আমজাদ হোসেন বলেন, মের্সাস খন্দকার ট্রেডার্সের মালিক অবৈধভাবে এসব চাল মজুদ করেছেন। তার কোন বৈধ কাগজ পত্র নেই।

অভিযান পরিচালনাকালে উপস্থিত ছিলেন, পলাশবাড়ী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, সাদুল্লাপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. রহিমা খাতুন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. আমজাদ হোসেন, সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফরহাদ ইমরুল কায়েস, পলাশবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) নবীউল ইসলাম।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য