সকালে এক কাপ, কাজের ফাঁকে ফাঁকে আর বিকাল অথবা সন্ধ্যায় কোনো আড্ডায়- সারাদিনে এভাবে কতবারই তো চা খাওয়া হয়! তবে একটু হিসাব করেই পান করুন এই পানীয়। কারণ অতিরিক্ত চা পান ঘুম কেড়ে নেওয়া ছাড়াও শরীরের উপর নানান প্রভাব ফেলতে পারে।

প্রিয় এই পানীয়র অসংখ্য গুণের মাঝে কিছু দোষও রয়েছে। স্বাস্থ্যবিষয়ক এক ওয়েবসাইটে এই বিষয়ের উপর প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী সেসব ক্ষতিকর দিকগুলো হল:

অতিরিক্ত চা পানের কারণে অনিদ্রা দেখা দিতে পারে।
– চায়ে থাকা ক্যাফেইন অল্প মাত্রায় মূত্রবর্থক হিসেবে কাজ করে। বেশি চা পান করলে ঘন ঘন প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে হতে পারে।

অনেকে মনে করেন সকালের চা ‘বড়’ কাজ সারতে সাহায্য করে। তবে অতিরিক্ত হলে হবে হিতে বিপরীত। চায়ে থাকা ‘থিওফাইলিন’ নামক রাসায়নিক উপাদান হজমের সময় পানিশূন্যতা তৈরি করতে পারে, যার ফলাফল কোষ্ঠকাঠিন্য।

ক্যাফেইন মেজাজ উৎফুল্লকারী উপাদান, শরীরের উপর যার ভালো-খারাপ দুটি প্রভাবই রয়েছে। অতিরিক্ত ক্যাফেইন ঘুমের সমস্যা, অস্থিরতা, অস্বস্তি ও হৃদস্পন্দসন বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য দায়ী।

গর্ভবতী মায়েদের চা পুরোপুরি এড়িয়ে চলা উচিত, কারণ চায়ের ক্যাফেইন ভ্রæণের বৃদ্ধি ব্যাহত করে এবং গর্ভপাতের ঝুঁকি বাড়ায়।

প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি হল অতিরিক্ত চা পানের সবচাইতে খারাপ দিক। গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব পুরুষ প্রচুর চা পান করেন তাদের এই ক্যান্সার হওয়া ঝুঁকি স্বাভাবিক চা পানকারীদের তুলনায় বেশি।

ক্যাফেইন হৃদযন্ত্রের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ উপাদান। তাই যারা হৃদরোগে আক্রান্ত কিংবা সেরে উঠেছেন তাদের চা যথাসম্ভব কম পান করাই শ্রেয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য