সৈয়দপুরে শহর উন্নয়নের মাধ্যমে আধুনিক পৌরসভায় রুপান্তরিত করতে ব্যপক পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে ১৪২ কোটি টাকা ব্যয় বরাদ্দ ধরা হয়েছে। এর মধ্যে ১৯টি বড় প্রকল্পর ব্যয় ধরা হয়েছে ১২০ কোটি ৯০ লাখ টাকা। যা চলতি ২০১৭ অর্থ বছর থেকে ২০২০ অর্থ বছরের মধ্যে এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

বাকি ১৭ কোটি ৬৬ লাখ টাকার উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়নের পথে রয়েছে। সৈয়দপুর পৌরসভার অধিবেশন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের কাছে এসব তথ্য তুলে ধরেন সৈয়দপুর পৌরসভার জনপ্রিয় মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার। পৌর এলাকার চলমান ও বাস্তবায়িত প্রকল্পের কার্যক্রম বিষয়ে অবহিত করতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার সৈয়দপুর পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে বলেন এমজিএমপি, আইইউআইডিপি, এডিপি ও রাজস্ব খাত থেকে বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে ১৯টি বড় প্রকল্প ১২০ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয় হবে।

২০১৭-২০২০ অর্থ বছরের মধ্যে প্রকল্পে বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে শিশু পার্ক, বাস টার্মিনাল, ট্রাক টার্মিনাল, পৌরভবন, পৌর সুপার মার্কেট, কিচেন মার্কেট, কমিউনিটি সেন্টর, হাট-বাজার ও কসাইখানা নির্মাণসহ শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনে ড্রেন ও আরসিসি ড্রেন নির্মাণ ও রাস্তাঘাট নির্মাণ ছাড়াও অন্যান্য উন্নয়নমূলক কাজ।

এসব প্রকল্পের বেশ কিছু প্রকল্পের দরপত্র মূল্যায়ন চলছে এবং কয়েকটি প্রকল্পের দরপত্র আহ্বান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এদিকে চলতি অর্থ বছরে এমজিএসপি’র অর্থায়নে ১৬ কোটি ৭৭ লাখ ৮৮ হাজার টাকা ব্যয়ে পাঁচমাথা মোড় হতে সৈয়দপুর-পার্বতীপুর রোড পর্যন্ত রাস্তা এবং বিমানবন্দর থেকে পার্কমোড় পর্যন্ত রাস্তা প্রসস্থকরণ, ড্রেন নির্মাণ, রোড ডিভাইডারসহ ফুটপাত নির্মাণ ছাড়াও এলইডি লাটি সংযোগ স্থাপনের কাজ চলছে জানিয়ে পৌর মেয়র আমজাদ সাংবাদিকদের জানান, পৌর এলাকার ১৫টি ওয়ার্ডে রাস্তা নির্মাণ ও সংস্কার, ড্রেন ও গাইড ওয়াল নির্মাণের কাজ প্রায় শেষের দিকে ২৪টি গ্রুপের এসব উন্নয়নমূলক কাজ বাস্তবায়নে ব্যয় হচ্ছে ৮৯ লাখ ২১ হাজার টাকা।

চলতি ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে কি কি কাজ বাস্তবায়ন হয়েছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আমজাদ বলেন ১৪ লাখ ১৭ হাজার টাকা ব্যয়ে পৌরসভার পুরাতন অফিস বিল্ডিং, ইপিআই ভবন মেরামত গ্যারেজ নির্মাণ ও কসাইখানার দুধারে মাটি ভরাট ও গাইড ওয়াল নির্মাণ করা হয়।

তিনি বলেন, পৌর এলাকার বিভিন্ন রাস্তা ও ড্রেন মেরামতের জন্য ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এ ছাড়া ২ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের দরপত্র চলতি মাসে আহ্বান করা হবে। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর কাউন্সিলর জোবায়দুল ইসলাম মিন্টু, শাহীন হোসেন, কাজী মনোয়ার হোসেন হায়দার, আজগার আলী, কণিকা রানী সরকার প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য