দিনাজপুর সংবাদাতাঃ পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) ঢাকার উপ-ব্যবস্থপনা পরিচালক গোলাম তৌহিদ বলেছেন শুধু মাছ ছাড়লেই হবে না, তাদের সংরক্ষণ করতে হবে। পোনা অবমুক্তকরণ কর্মসূচী বাস্তবায়ন করতে হলে পোনাকে বড় হতে দিতে হবে। অনন্তঃ ৩ মাস পোনা গুলোকে বড় করতে পারলে সে ১ দিন পূর্ণাঙ্গ মাছ হবে এবং তারাই পোনা জন্ম দিবে।

সারা বিশ্বে মাছ চাষে বাংলাদেশ ৪র্থ স্থানে রয়েছে। আমিষে ঘাটতি পূরণ করতে মাছের চাষ বৃদ্ধি করতে হবে। পাশাপাশি হানিয়ে যাওয়া বিভিন্ন মৎস্য প্রজাতির মাছকে আবার উজ্জীবিত করতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। মাছকে ভালবাসুন, দেশকে ভালবাসুন, ভাতে মাছে বাঙ্গালীর প্রবাদ বাক্যকে বাস্তবায়ন করুন।

১৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার গাবুড়া ব্রীজ সংলগ্ন গর্ভেশ্বরী নালায় মহিলা বহুমুখী শিক্ষা কেন্দ্র (এমবিএসকে) বালুবাড়ী দিনাজপুর এর আয়োজনে এবং পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) ঢাকার সহযোগিতায় মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ ইউনিটের আওতায় আভ্যন্তরীণ মুক্ত জলাশয় পোনা অবমুক্তকরণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করতে গিয়ে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন।

এমবিএসকে’র নির্বাহী প্রধান মোসাঃ সুলতানা রাজিয়া খাতুনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ ঢাকার মহা ব্যবস্থাপক (কার্যক্রম) ড. শরীফ আহম্মেদ চৌধুরী, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শাহ্ ইমাম জাফর সাদেক, ৪নং শেখপুরা ইউপি চেয়ারম্যান বাবুল আকতার, হাবিপ্রবি’র প্রভাষক শেখ ইসতিহাক মোঃ শাহরিয়ার।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপ-নির্বাহী পরিচালক খালেদ মোশাররফ হোসেন। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন মোর্শেদা পারভীন মলি। সভা শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদ্বয় দিনাজপুর সদর উপজেলায় বিভিন্ন এলাকায় পিকেএসএফ এর অর্থায়নে এমবিএসকে’র বাস্তবায়িত প্রকল্পগুলো পরিদর্শন করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য