সংবাদ সম্মেলনঃ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্কুল পড়ুয়া ১০ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন ও হত্যার পর লাশ গুম করা হয়েছে অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে হতভাগ্য এক পিতা।

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার কশিগাড়ী গ্রামের মৃত ফজলার রহমানের পুত্র হতভাগ্য পিতা নজরুল ইসলাম গতকাল মঙ্গলবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি দাবী করেন একই উপজেলার দক্ষিন দেবীপুর গ্রামের আবুল কুদ্দুসের পুত্র মোঃ রতন তার স্কুল পড়ুয়া একমাত্র কন্যা মোছাঃ নাজনিন আক্তার(১৬) কে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে র্দীঘদিন ধর্ষন করেছে।

পরবর্তীতে রতন বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করলে গত ৭ সেপ্টেম্বও রতন ও আমার মেয়ে নাজনীনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও বিবাদ হয়। এই ঘটনা প্রতিবেশীরা দেখেছে, পরদিন ৮ সেপ্টেম্বর ভোর ৫টার দিকে আমার মেয়ে আসামী রতনের বাড়ীতে যায় এবং তারপর সেখান থেকে সে আর ফিওে আসেনি। অনেক খোজাখুিজর করেও আমরা মেয়েকে খুজে পাওয়ানি।

গত ১১ সেপ্টেম্বর মেয়ের পড়ার টেবিলে একটি চিঠি পাওয়া যায় তাতে মেয়ের নিজ হাতে লেখা রয়েছে “রতনের কারনে আমি পৃথিবী থেকে চলিয়া যাইতেছি”। তিনি আশংকা কওে জানান, ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে আসামী রতন তার মেয়েকে হত্যা কওে লাশ গুম করে ফেলেছে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, আসামী রতনের বিরুদ্ধে গত ১৭ সেপ্টেম্বও দিনাজপুর নারী শিশু নির্যাতন দমন আদালতে ৯(১)৯(ক)/৩০/৫০৬(।।) ধারায় একটি মামলা আনয়ন করেছেন। মামননীয় আদালত মামলাটি এজাহার হিসেবে রুজু করতে ঘোড়াঘাট থানা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি তার কন্যাকে জীবিত অথবা মৃত উদ্ধার এবং আসামীকে গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির জন্যে প্রশাসনের কাছে দাবী করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, আব্দুল মান্নান মন্ডল, মোঃ রহুল আমিন, সাগর চন্দ্র বর্মন, এ্যাডঃ মোঃ চাঁন মিয়া ও মোঃ নুর মোহাম্মদ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য