কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ কাহারোলে কৃষকেরা পাটের ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় হত্যাশা ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় চলতি পাট মৌসুমে কৃষকেরা তাদের অতি কষ্টের ফসল পাট ঘরে তোলার পর বাজারে বিক্রি করার জন্য এনে পাটের কাঙ্খিত মূল্য না পাওয়ার কারণে অনেক কৃষক পাট চাষাবাদ করে লাভের চেয়ে লোকসান গুনতে হচ্ছে।

কাহারোল বাজারে পাট হাটিতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, দেশী জাতীয় প্রতি মন ১৪ শত থেকে ১৪ শত ৫০ টাকা এবং অন্যান্য জাতের পাট ১৫ শত থেকে ১৫ শত ৫০ টাকা দরে পাট চাষীরা তাদের কষ্টের ফসল পাট বিক্রি করছেন। অনেক কৃষক জানান, তাদের হাতে বর্তমানে তেমন অর্থ না থাকার কারণে শ্রমিকদের অর্থ পরিশোধ করতেই অল্প মূল্যে পাট বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন।

এদিকে উপজেলার ৪নং তাড়গাঁও ইউনিয়নের পাহাড়পুর গ্রামের পাট চাষী মোঃ হাসিম উদ্দীন, মোঃ রবিউল ইসলাম, মোঃ আব্দুর রশিদ সহ অনেক কৃষক এই প্রতিনিধি কে জানান, পাট চাষাবাদ করতে গিয়ে যে হারে অর্থ ব্যয় করতে হয় পাট উৎপাদনের ক্ষেত্রে সেই হারে পাট বিক্রি করে উৎপাদন খরচ তুলতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

সব মিলে পাট চাষাবাদের ক্ষেত্রে লাভের চেয়ে লোকসানের পরিমাণ বেশি হওয়ায় অত্র উপজেলার কৃষকেরা পাট চাষে দিন, দিন আগ্রহ হারাতে বসেছে। আবার অনেকেই জানান, কৃষকরা পাটে ন্যায্য মূল্য না পেয়ে থাকলে আগামী মৌসুমে পাট চাষের পরিবর্তে অন্য ফসল চাষাবাদের দিকে ঝুকে পড়ার আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য