আর কয়েকদিন পরেই হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। আর এই পূজাকে ঘিরে চলছে প্রতিমা তৈরির ধুম।

এ অঞ্চলে ভয়াবহ বন্যার কারণে নানা সমস্যা হওয়ায় দেরীতে দিনাজপুরে প্রতিমা তৈরীতে দিন রাত মন্ডপগুলোতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎ শিল্পীরা।
সাম্প্রতিক বন্যার পরেও গত বছরের তুলনায় এবারও দিনাজপুর জেলায় বেড়েছে মন্ডপ সংখ্যা।

দিনাজপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বরূপ কুমার বক্সী বাচ্চু জানান, এ বছর দিনাজপুর জেলায় ১ হাজার ২৩০টি মন্ডপে আয়োজন করা হচ্ছে শারদীয় এই দুর্গোৎসব। গত বছর জেলায় মন্ডপ সংখ্যা ছিলো ১ হাজার ২২০টি।

প্রতিমা শিল্পীদের নিপুণ আঁচড়ে তৈরি হচ্ছে প্রতিমা। মাটির কাজ শেষ করার পর রঙ-তুলির আঁচরে বর্ণিলভাবে প্রতিমার রূপ দেওয়া হচ্ছে। নিজের সন্তানের মতো অতি ভালবাসায় তৈরি করা হচ্ছে দুর্গা, সরস্বতী, লক্ষ্মী, কার্তিক, গণেশ, অসুর ও শিবের মূর্তি। হৃদয়ের ভালবাসায় চলছে প্রতিমা তৈরির এ কাজ।

প্রতিমার আকার ও শৈল্পিক গঠন অনুযায়ী প্রতিমা শিল্পীরা ১০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন।

পূজার আয়োজকরা জানায়, সাম্প্রতিক ভয়াবহ বন্যায় দিনাজপুর জেলার অধিকাংশ এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়। বিধ্বস্থ হয় অসংখ্য বাড়িঘর। এ কারণে এবার প্রতিমা তৈরীতে দেরী হলেও বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই মৃৎ শিল্পীরা শুরু করে প্রতিমা তৈরীর কাজ। প্রতিযোগিতা মূলকভাবে মন্ডপ সাজ-সজ্জার পাশাপাশি প্রতিমাতেও নতুনত্ব আনার চেষ্টা করেন তারা। আর এ জন্য প্রতিবছর তাদের পূজার বাজেটও বাড়াতে হচ্ছে।

এদিকে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গোৎসব সম্পন্ন করতে প্রশাসন সব রকম ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। ইতিমধ্যেই দিনাজপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতাদের নিয়ে সভা করেছেন দিনাজপুর জেলা প্রশাসন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য