মোঃ জাকির হোসেন সৈয়দপুর (নীলফামারী) থেকেঃ জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করলে তা দিতে অস্বীকার করায় জমির বেড়া ও সাইনবোর্ড ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। গত ১৬ সেপ্টেম্বর সকালে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ধলাগাছ এলাকায়। এ ব্যাপারে সৈয়দপুর থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, নিয়ামতপুর বাস টার্মিনাল এলাকার মৃত নিঝাল মামুদ এর ছেলে মো: বাবুল হোসেন কবলা দলিল মূলে জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছেন। দীর্ঘ দিন থেকে ওই এলাকার সন্ত্রাসী মৃত জব্বার আলীর ছেলে আবু বক্কর ছিদ্দিক (৪২) ও পৌর এলাকার চাঁদনগর মহল্লার মো: আখতার হোসেনের ছেলে আহমেদ হোসেন (৩৫) বাবুল হোসেনের জমি নিয়ে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৬ সেপ্টেম্বর সকাল আনুমানিক ১০ টার সময় ধলাগাছ মোড়ে বাবুলের দেখা পেয়ে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এবং প্রাণ নাশের হুমকি দেয়।

এর প্রতিবাদ করলে আবু বক্কর ছিদ্দিক ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে বলে চাঁদা না দিলে তোকে জমিতে প্রবেশ করতে দিব না। টাকা না দিয়ে জমিতে গেলে জমিতে দেয়া বাঁশের বেড়া ভেঙ্গে দিব এবং জমি জবর দখল করবো। এসময় উপস্থিত সাক্ষীগণের মধ্যে ছিলেন ফয়েজ আহমেদ, মোকছেদুল, মো: আলম, মো: ফেরদৌস, মো: ফরহাদ হোসেন, মো: নুর আলী, মো: মোমিনুল ইসলাম ও মো: রইচ উদ্দিন জোতদার (মতি)। তাদের সহযোগিতায় বাবুল বাড়িতে চলে যায়।

এরপর প্রায় আনুমানিক ১ ঘন্টা পর ৩ নং সাক্ষী মো: আলমের মোবাইলে মাধ্যমে বাবুল জানতে পারে যে, আবু বক্কর ছিদ্দিক ও আহমেদ হোসেন উক্ত জমিতে জোড় পূর্বক প্রবেশ করে জমির চারদিকের ঘেরা দেয়া বাঁশের বেড়া ভেঙ্গে ফেলেছে এবং জমিতে লাগানোন বাবুল ও ১ নং সাক্ষী ফয়েজ আহমেদের জমির সাইনবোর্ড উপরিয়ে ফেলেছে। এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছলে বাবুলকে লক্ষ্য করে আসামীদ্বয় আবার গালিগালাজ ও বিভিন্ন ধরণের হুমকি দেয় এবং চাঁদা দাবি করে। এমতাবস্থায় বাবুল হোসেন সৈয়দপুর থানায় একটি এজাহার দাখিল করেছেন।

এ ব্যাপারে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আমিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, থানায় এজহার দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য