বিরলে মোবাইল সিমের নম্বার ব্যবহার করে অজ্ঞাত পরিচয়ের ঐ যুবকের লাশের পরিচয় মিলেছে। নিহত ঐ যুবকের নাম সুর্য্য চন্দ্র রায় ওরফে মাষ্টার (২৩)। সে দিনাজপুর কোতয়ালী থানার ফাজিলপুর ইউপি’র উত্তর মহেষপুর গ্রামের জগত চন্দ্র রায়ের পুত্র।

বিরল থানার এস আই দীপেন্দ্র নাথ সিংহ বলেন, অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই যুবকের মানিব্যাগে একটি সিম পাওয়া যায়। ওই সিমে সংরক্ষিত ফোন নম্বরে ফোন দিয়ে তাঁর পরিচয় মিলে।

সে (সুর্য্য চন্দ্র রায়) বিরল উপজেলার আজিমপুর ইউপি’র আজিমপুর গ্রামের ফণি ভুষণ রায়ের কন্যা বিউটি রাণী রায়কে গত ৫ থেকে ৬ বছর আগে প্রেম করে বিয়ে করে। বিয়ের কিছুদিন পর উভয়ের পরিবার বিয়েটি মেনে নেন। প্রায় দেড় বছর আগে সুর্য্য তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে শশুড় বাড়িতেই বসবাস করছিল। তাঁর ১ বছর বয়সি একটি পুত্র সন্তান আছে। ঋণ নেয়ায় তাঁর কাছে অনেকেই টাকা পেত বলেও জানান।

বিউটি রাণীর পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানান, সুর্য্য চন্দ্র রায়ের গ্রামের অনেকেই নাকি তাঁর (সুর্য্য) কাছে টাকা পেত। সে ঋনগ্রস্থ হয়ে পড়ে ছিল। মানুষের পাওনা পরিশোধের জন্য টাকা যোগাড় করার চেষ্টাও করেছিল।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৯ টার দিকে উত্তর মহেষপুর গ্রাম থেকে দুই ব্যাক্তি সুর্য্যরে কাছে পাওনা টাকা নিতে এসেছিল। সে টাকা দিতে পারে নাই। ওই দিন সকাল ১১ টার দিকে সে (সুর্য্য) রাণীরবন্দরে ডালা পুঁজার বাজার করার কথা বলে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে আসে। রাতে বাড়ি না ফেরায় বিউটির পিতা ফণি ভুষণ জামাইয়ের খোঁজ নেওয়ার জন্য গ্রামের বাড়ি উত্তর মহেষপুরে খোঁজ করে। সেখানে সুর্য্য যায়নি বলে তাঁর পিতা জতগ চন্দ্র রায় জানান। পরেরদিন সকালেও সেখানে খোঁজ নেওয়া হয়। কিন্তু সে (সুর্য্য) পিতার বাড়িতেই যায়নি বলে জানানো হয়।

পরে ফোনে জানতে পারে যে পুলিশ বিরলের নলদীঘি শেকপাড়া গভীর নলকুপের পাশে একটি লাশ উদ্ধার করেছে। নিহতের স্বজনরা ঘটনাস্থলে লাশ দেখে তাঁকে সনাক্ত করে। এ ঘটনায় নিহতের জ্যাঠা সুদেব চন্দ্র রায় বাদি হয়ে বিরল থানায় একটি ইউডি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছে। থানার মামলা নং -৩৫, তারিখঃ ১৩.০৯.২০১৭।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই দীপেন্দ্র নাথ সিংহ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সুরতহাল রির্পোটে হত্যার কোন আলামত পাওয়া যায়নি। ময়না তদন্ত রির্পোট না পাওয়া পর্যন্ত হত্যার রহস্য জানা যাবে না।

বৃহস্পতিবার দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম হাসপাতালে নিহতের ময়না তদন্ত সম্পন্ন শেষে নিহতের পরিবারের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য