রংপুরের পীরগঞ্জে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় স্কুলছাত্রীকে হত্যার চেষ্টা অভিযোগে সাফি নামের এক যুবককে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের উজিরপুর নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও আহত ছাত্রীর পরিবার জানায়, উপজেলার রামনাথপুর ই্উনিয়নের রামনাথপুর গ্রামের পলাশ মিয়ার কন্যা উপজেলা সদরের কছিমন নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ শ্রেণীর ছাত্রী আরজিনা আকতার স্বর্ণাকে দীর্ঘদিন থেকে একই গ্রামের আবদুল হাকিম মিয়ার পুত্র সাফি মিয়া প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করে আসছে।

স্বর্ণা তার প্র্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় সাফি ও তার সহযোগীরা স্বর্ণাকে জীবন নাশের হুমকিও দেয়। এ ব্যাপরে গত ১৬ মে পীরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করার পরেও পুলিশ কোন পদক্ষেপ নেয়নি। এমতাবস্থায় ওই বখাটের হাত থেকে রক্ষা পেতে স্বর্ণাকে প্রায় এক বছর আগে তার খালু উজিরপুর গ্রামের ফারুক মিয়ার বাড়িতে রেখে যায়।

পরবর্তীতে খালুর বাড়ি থেকে নিয়মিত উপজেলা সদরের কছিমন নেছা বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণীতে পড়ালেখা করতো স্বর্ণা। গত বুধবার স্বর্ণা বিদ্যালয় ছুটির পর কোচিং শেষে খালুর বাড়ি ফেরার পথে পড়ন্ত বিকেলে উজিরপুর নামক স্থানে পৌঁছুলে বখাটে সাফি ও তার এক সহযোগিসহ মোটর সাইকেল যোগে পথরোধ করে স্বর্ণার মাথায় রড দিয়ে আঘাত করে।

আহত স্বর্ণা মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সংজ্ঞা হারায়। স্থানীয় লোকজন মুমুর্ষ স্বর্ণাকে উদ্ধার করে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। স্বর্ণার বাবা পলাশ মিয়া জানায়, তার মেয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক হেতু চিকিৎসক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার পরামর্শ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে স্বর্ণার মা সেলিনা বেগম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ রেজাউল করিম জানান, সাফিকে গত বুধবার রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে। বর্তমানে সে জেল হাজতে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য