সংবাদ সম্মেলনঃ তৎকালিন বেসরকারী সংস্থা বাযুঐকস সংস্থার সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিনাজপুর সহ ৮ জেলার গ্রাহকদের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎকারী সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ হালিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে তার মা ও ভাইরা সম্পত্তির আত্মসাতের অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছে।

১২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দিনাজপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে দিনাজপুর শহরের চুড়িপট্টি মহল্লার মৃত মনজের আলী বলেন, আমার পিতা ১৯৭১ সালে তৎকালিন পূর্ব পাকিস্তান সরকারের নিকট হতে ৫.৬৪ শতক জমি লীজ নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। গত ১৯৮৯ সালে তিনি মারা গেলে পিতার সূত্র অনুযায়ী আমরা ৪ ভাই হেলাল উদ্দিন, হালিম উদ্দিন, হাসিম উদ্দিন, হারুন-অর-রশিদ পুনরায় লীজ গ্রহণ করে মা বোন সহ আমরা ভোগ দখল করে আসছিলাম।

কিছুদিন পূর্বে আমার দ্বিতীয় ভাই মোঃ হালিম উদ্দিন আমাদের স্বাক্ষর জাল করে এডিসি (রাজস্ব) কে ভুল বুঝিয়ে হালিম উদ্দিনের স্ত্রী মোছাঃ হাবিবা পারভীনের নামে জমিটি এককভাবে লীজ করিয়ে নেয়। আমরা বিষয়টি জানতে পেয়ে এডিসি (রাজস্ব) বরাবর আবেদন করলে মোছাঃ হাবিবা পারভীনের নামে লীজকৃত দলিলটি বাতিল হয় এবং পূর্বের লীজ বহাল থাকে।

পরবর্তীতে মোঃ হালিম উদ্দিন ও তার সম্বন্ধি অপরূপা জুয়েলার্সের মালিক মাহমুদুন্নবী (মাহমুদ), হালিম উদ্দিনের স্ত্রী মোছাঃ হাবিবা পারভীন ও তাহার ভায়রা পরিকল্পিতভাবে আমাদের ৩ ভাই ও আমার স্ত্রীকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয় এবং আমার মাকে ঘরে বন্দি করে সদর গেটে তালা মেরে রেখে দেয়।

এ ব্যাপারে আমরা কোতয়ালী থানায় অভিযোগ করি কিন্তু তার সমন্ধি ও ভায়রা থানা কর্তৃপক্ষকে প্রভাবিত করে বিষয়টি ধামাচাপা দিয়ে রাখে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনাসহ উক্ত সম্পত্তি আমাদের ৩ ভাই ভোগদখল করার অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য