কুড়িগ্রামের উলিপুরে শিশু আরজিনা অপহরণকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা সদরের মসজিদুল হুদা মোড়ের প্রধান সড়কে এলাকার ৫ শতাধিক মানুষ হাতে হাত রেখে মানববন্ধনে অংশ নেয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, উলিপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু সাঈদ সরকার, রেল, নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণ কমিটির সভাপতি আপন আলমগীর, মাসুম করিম, শিশু আরজিনার পিতা আক্কাছ আলী ও মামা মোন্নাফ আলী।

বক্তরা অবিলম্বে অপহরণ ঘটনার রহস্য উৎঘাটন করে প্রকৃত দোষিদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবী জানান এবং পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেন। আরজিনার পিতা অভিযোগ করে বলেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা অপহরণকারীদের রক্ষা করতে বাদিকে জমির প্রলোভন দিয়ে অপহরণ ঘটনা মীমাংসার জন্য চাপ দিচ্ছে।

উল্লেখ্য, নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার বাহাগিলি ইউনিয়নের হাজিপাড়া গ্রামের আক্কাছ আলীর শিশুকন্যা আরজিনা (৭) নানার বাড়ী উলিপুর উপজেলার ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের রুপার খামার গ্রামে থেকে রুপার খামার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে লেখাপড়া করত।

গত ৬ আগস্ট সন্ধ্যায় কৌশলে প্রতিবেশি এক পাতানো নানী তাকে বিস্কুট খাওয়ার প্রলোভন দিয়ে বাড়ির বাইরে নিয়ে এসে ভাই সাহেব আলীর মাধ্যমে অপহরণ করে। এর ১২ দিন পর সাহেব আলীর ভাই রংপুর শহরের মুন্সীপাড়াস্থ পুলিশের এস.আই আবুবক্কর এর ভাড়া বাসা “ক্ষণিকালয়” থেকে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে উদ্ধার হয়।

শিশুটিকে উদ্ধার করা হলেও অপহরণের নেপথ্য ঘটনা দামাচাপা দিতে ঐ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তৎপর হয়ে উঠেন। চেয়ারম্যানের ভূমিকা রহস্যজনক হওয়ায় শিশুটির পরিবারের লোকজন স্থানীয় মানুষের সহযোগীতায় থানায় মামলা দায়ের করে।

কিন্তু অপহরণ ঘটনার সাথে এক পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী জড়িত থাকায় আসামী গ্রেফতারে পুলিশ রহস্যজনক ভূমিকা পালন করছে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য