মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে মাদক উদ্ধারের নামে গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় ডিবি পুলিশের সব সদস্যকে বদলি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ডিবির পরিদর্শক (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেছেন ডিবির সব স্টাফকে বদলি করা হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। তবে পুলিশ সুপার বলেছেন, কয়েক জনকে বদলি করা হয়েছে। এটি নিয়মতান্ত্রিক বদলি, এই বদলির সঙ্গে সংঘর্ষের কোনও সম্পর্ক নেই।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ১০ জন এসআই, ৫ জন এএসআইসহ ডিবি পুলিশের ৩৬ জন সদস্যকে বদলি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার ১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ডিবি পুলিশের এসআই রেজাউল ইসলাম ও এএসআই জামিলের নেতৃত্বে দিনাজপুর সদর উপজেলার মহব্বতপুর গ্রামে হাজীর মোড়ে ডিবি পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালায়। এসময় নুরুজ্জামান (২২) নামের এক ব্যক্তির কাছে মাদক আছে বলে তাকে মারধর করে। এ সময় এলাকাবাসী বাধা দিলে ডিবি পুলিশের সঙ্গে তাদের বাক-বিন্ডা হয়। এক পর্যায়ে স্থানীয়দের ওপর ডিবি পুলিশ লাঠিচার্জ করলে ডিবি পুলিশের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ বাধে। এ সময় সেখানে থাকা ডিবি পুলিশ পালিয়ে যায় এবং কিছুক্ষণ পর অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে গ্রামবাসীর উপর লাঠিচার্জ করে। এ সময় ডিবি পুলিশের সদস্যরা গ্রামের নারী ও শিশুদেরও মারধোর করে। এই ঘটনায় ১১ জন আহত হয়।

এ ঘটনায় এলাকার লোকজন ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার দাবিতে সড়ক অবরোধ করে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের আশ্বাসে তারা অবরোধ তুলে নেয় এবং পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ দেয়। এই অভিযোগে বলা হয়, প্রায়ই ডিবি পুলিশ ওই এলাকায় গিয়ে নিরীহ মানুষকে হয়রানি করে।

অভিযোগের পর পুলিশ সুপার ডিবি পুলিশের ১০ এসআই, ৫ এএসআইসহ মোট ৩৬ জনকে বদলি করেন। রাতেই তাদের বদলির আদেশ দেয়া হয়। তবে ডিবি পুলিশের দুই পরিদর্শক মনিরুজ্জামান ও মোস্তাফিজুর রহমানের বদলির আদেশ এখনও আসেনি বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, পরিদর্শকদের বদলির আদেশ আসবে ডিআইজি কার্যালয় থেকে। সেখান থেকে আদেশ আসতে দেরি হচ্ছে। তবে ডিবির সবাইকে বদলি করা হয়েছে। যারা গ্রামবাসীদের দেওয়া অভিযোগের সঙ্গে জড়িত নয়, তাদের দিনাজপুরেই রাখা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে ডিবির পরিদর্শক (ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, ডিবির পুরো স্টাফকেই বদলি করা হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। তবে তাকে (মনিরুজ্জামান) বদলি করা হয়েছে কিনা তা জানা নেই। এখনও তিনি আদেশ পাননি।
দিনাজপুরের পুলিশ সুপার মো. হামিদুল আলম জানান, ডিবি’র কয়েকজনকে বদলি করা হয়েছে। তবে এটি নিয়ম মাফিক বদলি। গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষ কিংবা অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের বদলি করা হয়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য