জম্মু-কাশ্মিরের কুলগামে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে হিজবুল মুজাহিদীনের দুই গেরিলা নিহত এবং অন্য একজন গ্রেফতার হয়েছেন।

গতকাল রোববার রাত থেকে শুরু হওয়া বন্দুক যুদ্ধ শেষে আজ ভোরে ওই গেরিলারা নিহত হন। এদের কাছ থেকে এ কে-৪৭ ও ইনসাস রাইফেল উদ্ধার হয়েছে। এছাড়া জীবন্ত গ্রেফতার হওয়া আরিফ সফির কাছ থেকে একটি পিস্তল উদ্ধার হয়েছে।

গেরিলাদের লুকিয়ে থাকার খবর পেয়ে গতকাল রাতে নিরাপত্তা বাহিনী কুলগাম জেলার খুদওয়ানি এলাকা ঘিরে ফেলে তল্লাশি চালায়। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে গেরিলারা গুলিবর্ষণ শুরু করে। নিরাপত্তা বাহিনীও পাল্টা জবাব দিলে উভয়পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে দুই গেরিলা নিহত এবং একজন গ্রেফতার হন।

আজ (সোমবার) নিহত গেরিলাদের জানাজায় কয়েক হাজার মানুষ শামিল হন। এ সময় ক্ষুব্ধ মানুষজন স্বাধীনতাকামী ও ভারত বিরোধী স্লোগান দেন।

দাউদ আহমেদ ইলাহি ও সায়ের আহমেদ ওয়ানি নামে নিহত গেরিলাদের জন্য আজ ৫ দফায় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে, ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজ কুলগামে সর্বাত্মক বনধ পালিত হচ্ছে। সেখানে শহর ও শহরতলি এলাকায় সমস্ত দোকানপাট ও অন্যান্য বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

অন্যদিকে, আজ গেরিলাদের নিহত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই অনন্তনাগের লালচক ও রেশি বাজার এলাকায় প্রতিবাদী জনতা ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংশ্লিষ্ট এলাকায় মোতায়েন পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে ক্ষুব্ধ জনতা পাথর ছুঁড়লে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এ সময় পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটাতে হয়।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে কুলগাম ও অনন্তনাগ জেলায় মোবাইল ইন্টারনেট পরিসেবা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য