মোঃ ইউসুফ আলী, আটোয়ারী(পঞ্চগড়) থেকেঃ পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে নির্জন এলাকা হতে ভ্যান চালক ইদ্রিস আলীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে ৩১ আগস্ট বৃহস্পতিবার উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের মালিগাঁও গ্রামে। এলাকার লোকজন জানান, মালিগাঁও গ্রামের মৃত কছির উদ্দীন(হাদাং)এর পুত্র মোঃ ইদ্রিস আলী (৪২) একজন ভ্যান চালক হলেও ছিল শান্ত স্বভাবের মানুষ। প্রায় এক বছর ধরে তার মতিগতি ভাল দেখা যায়নি।

তার সাথে কথা বললে অনেক সময় অন্য মনস্ক হয়ে থাকতো। এলাকায় তার কারো সাথে বিবাদ ছিলনা, কিন্তু তার মৃত্যুটা রহস্যজনক। পরিবারের লোকজন বলেন,ইদ্রিস আলী বেশ কিছুদিন হতে প্রায় মস্তিস্ক বিকৃতির মত ঘোরাফেরা করতো।

ঘটনার দিন(৩০ আগস্ট) সন্ধার পর বাড়ি হতে বের হলে আর বাড়িতে ফিরেনি। বাড়ির আশপাশে খোজাখুজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। পরদিন (৩১ আগস্ট) লোকমুখে শুনে বাড়ি হতে প্রায় এক কি:মি: দুরে নির্জন এলাকা দরগাহ হাটে তার লাশ দেখাযায়। রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান আবু জাহেদ বলেন, সকালে ইদ্রিসের অপমৃত্যুর খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থল দরগাহ হাটে এসে তার লাশ দেখেছি।

লাশের মাথায় ও মাটিতে রক্ত লেগে ছিল এবং লাশের সাথে একটি পলিব্যাগে দানাদার কীটনাশক মোড়ানো ছিল। চেয়ারম্যান বিষয়টি থানায় জানানোর পর আটোয়ারী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আমিনুল ইসলাম, এসআই আজিজুর রহমান সংগীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে দীর্ঘ সময় ধরে পর্যবেক্ষনের পর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছেন। ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, ইদ্রিস বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। আর জঙ্গলী টিনা তার শরীরের রক্ত খেয়ে ছুটে যাওয়ার পর ক্ষত স্থান হতে রক্তক্ষরন হয়ে মাটিতে রক্ত জমে ছিল।

এডিশনাল এসপি সুদর্শন রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন,লাশ নিয়ে পরবর্তীতে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি না হওয়ার কারনে ময়না তদন্তের জন্য লাশ পঞ্চগড় মর্গে পাঠানো হয়েছে। লাশ দেখতে এসে অনেকেই মন্তব্য করেছেন, বিষপানে আত্মহত্যা করলে বাড়ি হতে প্রায় এক কি:মি: দুরে নির্জন এলাকায় আসতে হবে কেন। কেহ বলছেন, ইদ্রিসকে হত্যা করা হয়েছে। আসলে হত্যা না আত্মহত্যা ? এনিয়ে এলাকায় প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য