যুক্তরাষ্ট্রের নিউ মেক্সিকো অঙ্গরাজ্যেরে একটি গণপাঠাগারে এক তরুণের গুলিতে দুইজন নিহত ও চারজন আহত হয়েছেন।

সোমবার টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের সীমান্তবর্তী ক্লোভিস নামের ছোট একটি শহরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা।

ওই দিন স্থানীয় সময় বিকেল ৪টার দিকে পাঠাগারটিতে গুলি করতে শুরু করেন ওই তরুণ, পরে পুলিশ এসে এক ঘন্টা ধরে পাঠাগার ভবন ঘেরাও করে রেখে তাকে গ্রেপ্তার করে।

নাগরিকদের জন্য উন্মুক্ত একটি স্থানে এ ধরনের একটি হত্যার ঘটনা খামার প্রধান শহরটির জন্য একটি ‘আঘাত’ বলে মন্তব্য করেছেন ক্লোভিসের মেয়র ডেভিড ল্যান্সফোর্ড।

এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “দুই ব্যক্তি প্রাণ হারিয়েছেন। তাদের পরিবার তাদের আর ঘরে ফিরতে দেখবে না। এ ঘটনা আমাদের সমাজের জন্য বড় একটি আঘাত।”

হতাহতের কারো পরিচয় ও বয়সের বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি।

ক্লোভিস থেকে ১৬১ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে টেক্সাসের লুবোক শহরের বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রের মুখপাত্র এরিক ফিনলে জানিয়েছেন, সোমবার সন্ধ্যা থেকে তাদের এখানে তিনজনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে এবং অপর একজন হাসপাতালে আসার পথে রয়েছেন।

আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থা সঙ্কটজনক বলে জানিয়েছেন তিনি।

ঘটনার সময় পাঠাগারটিতে থাকা ভ্যানেসা আগুয়েরে জানান, তিনি তার ছেলেকে নিয়ে ক্লোভিস-কার্টার পাবলিক লাইব্রেরিতে ছিলেন, হঠাৎ একটি লোক এসে উপরের দিকে তাক করে গুলি করতে শুরু করে।

ইস্টার্ন নিউ মেক্সিকো সংবাদপত্রকে তিনি বলেন, “সবকিছু অত্যন্ত তাড়াতাড়ি ঘটে যায়। আমরা পালিয়ে যাই, কিন্তু আমার পার্সটি সেখানেই রয়ে যায়।”

এই সংবাদপত্রটির ওয়েবসাইটে দেওয়া ছবিতে দেখা গেছে, পুলিশের সশস্ত্র দল পাঠাগারটির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, পুলিশ এক তরুণকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে এবং এক নারীকে, সম্ভবত আহত, অ্যাম্বুলেন্সে তোলা হচ্ছে।

এক সংবাদ সম্মেলনে শহরটির পুলিশ প্রধান ডগলাস ফোর্ড জানিয়েছেন, সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর সে নিজেই পুলিশের কাছে ধরা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে সন্দেহভাজনের পরিচয় বা বয়সের বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি।

হতাহতদের পরিচয় বা বয়সের বিষয়ে ফোর্ডও কিছু জানাননি; তবে নিহত দুজন নারী এবং আহতদের মধ্যে দুজন নারী ও দুজন পুরুষ বলে জানিয়েছেন তিনি।

৪০ হাজার বাসিন্দার ক্লোভিস শহরটির অবস্থান নিউ মেক্সিকোর বৃহত্তম শহর আলবুকার্কের ৩০৬ কিলোমিটার পূর্বে। এই শহরটির কাছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর ক্যানন এয়ার ফোর্স বেইস অবস্থিত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য