দিনাজপুরের বিরলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষকদের মাঝে রোপা আমন ধানের চারা ও ধান বীজ বিতরণ করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষকদের ১৮৯ জনের মাঝে রোপা আমন চারা ও ৬০ জনের মাঝে ব্রী-৩৪ জাতের ধানের বীজ বিতরণ করা হয়।

রোববার (২৭ আগষ্ট) দুপুরে ধানের চারা ও বীজ বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মোশারফ হোসেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম রওশন কবীর’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কৃষি সম্প্রারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মো. গোলাম মারুফ, কৃষি অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক জুলফিকার হায়দর, উপ-পরিচালক মো. গোলাম মোস্তফা, বিরল উপজেলা চেয়ারম্যান আ ন ম বজলুর রশীদ, ভাইস চেয়ারম্যান ফিরোজা বেগম সোনা, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম আব্দুল লতিফ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আশরাফুল আলম।

প্রধান অতিথি কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মোশারফ হোসেন বলেন, কষ্টের ফসল ফলিয়ে কৃষকদের খুব একটা লাভ হয় না, কিন্তু এটা জাতীয় পর্যায়ে অবদান রাখে।
আমাদেরকে জাতির কথা বিবেচনা করে কোন জমি অনাবাদী ফেলে রাখা যাবে না। কষ্ট যতই হোক, খরচ যতই বেশি পড়–ক, আমাদেরকে জাতীয় স্বার্থে উৎপাদন ধরে রাখার লক্ষ্যে ফসল উৎপাদন করতে হবে। বর্তমান সরকার খুবই আন্তরিক। সরকার কৃষকদের কথা চিন্তা করে রোপা চারা ও বীজ বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে। আমন মৌসুমে ক্ষতি হলেও রবি মৌসুমে কিভাবে এই ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া যায় সে ব্যাপারে আমরা আন্তরিকভাবে কাজ করবো।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য