নীলফামারীর ডোমারে শারমিন আক্তার (১৮) নামে এক কলেজ ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার সকালে উপজেলার ভোগডাবুরী ইউনিয়নের গোসাইগঞ্জ ঝাক্কুয়া পাড়া গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। শারমিন উক্ত গ্রামের মজিবর রহমানের মেয়ে এবং চিলাহাটি গালর্স স্কুল এন্ড কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্রী ছিল। পুলিশ দুপুরে লাশ উদ্ধার করে অভিযোগ না থাকায় পরিবারের নিকচ লাশ হস্তান্তর করে।

পরিবারের লোকজন জানায়, সকালে ঘুম থেকে উঠে বই পড়ার পর সকলের সাথে এক সাথে নাস্তা করে শারমিন। নাস্তা শেষে সকাল সারে নয়টার সময় কলেজ যাওয়ার প্রস্তুতির সময় সে তার বাবার কাছে একশত চাকা চাইলে তার বাবা পাট ব্যবসায়ী মজিবর তার মেয়েকে একশত টাকা দিয়ে বাড়ী থেকে বের হয়ে চলে যান এবং তার মা মাহবুবা বেগম ছাগল বাধার জন্য বাড়ীর বাইরে মাঠে যান। তার মা বাইরে থেকে ফিরে এসে ঘরের দরজা বন্ধ পান। অনেকক্ষন দরজা বন্ধ থাকায় তার মার মনে সন্দেহ জাগে।

এসময় বন্ধ দরজায় উকি দিয়ে তিনি দেখেন তার মেয়ে শারমিনের ঝুলন্ত দেহ ফ্যানের সাথে ওড়না দিয়ে পেচিয়ে রয়েছে।শারমিন কয়েক দিনে ধরে পেট ও শারীরিক সমস্যায় ভুগছিল বলেও পরিবারের লোকজন জানান। তবে কি কারনে সে আত্মহত্যা করতে পারেনি সে বিষয়টি তারা বলতে পারেন নি। চিলাহাটি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ফজলুর রহমান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে ইউডি মামলা হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য