মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) থেকে: সৈয়দপুরে বাসায় মাদক দ্রব্য লুকিয়ে রাখতে অস্বীকার করায় প্রতিবেশী মাদক ব্যবসায়ী দ্বারা গুরুতর আহত হয়েছেন এক গৃহবধু। এমনকি তার শ্লীলতাহানীরও চেষ্টা করা হয়। গত বুধবার বিকেলে উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের কাঙ্গালপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই গৃহবধু হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।

জানা গেছে, ওই এলাকার সাবেক মেম্বার রফিকুল ইসলামের ছেলে মাদক বিক্রেতা রানা (২৫) এলাকায় যুবসমাজের কাছে মাদক সরবরাহ করে। পুলিশের ভয়ে ঘটনার দিন বিকেলে রানা দুই কেজি পরিমাণ গাঁজা, শতাধিক ইয়াবা ট্যাবলেট ও কয়েক বোতল ফেন্সিডিল একই এলাকার ফজলু হোসেনের স্ত্রী পারভিনের ঘরে লুকিয়ে রাখতে চায়। পারভীন ওইসব মাদকদ্রব্য নিজ ঘরে রাখতে অস্বীকার করে। এতে রানা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে লাঠি দিয়ে বেদম মারপিট করে। তার আত্মচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে রানা পালিয়ে যায়। পরে আহত পারভীনকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পারভীন জানান, মাদক ব্যবসায়ী রানা মাদক দ্রব্য রাখার জন্য দীর্ঘদিন যাবত চাপ দিচ্ছিল। ওইদিনও সে কয়েক বোতল ফেন্সিডিল, ইয়াবা ও গাঁজা এনে আমার ঘরে লুকিয়ে রাখতে বলে। আমি তা করতে অস্বীকার করলে সে আমার চুলের মুঠি ধরে লাঠি দিয়ে পেটায়। সে দুর্দান্ত প্রকৃতির। আমার স্বামী বাড়িতে থাকে না। উক্ত রানা আমার প্রাণনাশ ঘটাতে পারে বলে আশংকা করছি।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আমিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আহত গৃহবধু পারভীন লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে দোষীদের বিরুদেধ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য